• সোমবার   ০৩ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আজকের খুলনা

পাইকগাছায় টানা ৪ দিনের বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা : বেড়েছে জনদুর্ভোগ

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২  

পাইকগাছায় টানা ৪ দিনের বৃষ্টিতে পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের নীচু এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। তলিয়ে গেছে রাস্তা-ঘাট, পুকুর-জলাশয়। ব্যাহত হয়েছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। অনেক বাড়ির উঠানে পানি উঠে যাওয়ায় দুর্ভোগ বেড়েছে মানুষের। উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় পানি নিষ্কাশনে নেট-পাটা অপসারণসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ। 

উলে­খ্য, গত রবিবার থেকে লঘু চাপের প্রভাবে অত্র উপজেলার সবখানে টানা ৪ দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। এতে সবুজ প্রকৃতি সতেজতা ফিরে পেলেও দুর্ভোগ বেড়েছে মানুষের। টানা ৪ দিনের বৃষ্টিতে উপজেলার কপিলমুনি, হরিঢালী, গদাইপুর, রাড়–লী, চাঁদখালী ও গড়ইখালীসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের নীচু এলাকায় জলাবদ্ধতা বৃষ্টি হয়েছে। ইউনিয়নের পাশাপাশি পৌরসভার গোপালপুর, সরল, বাতিখালী ও শিববাটী এলাকায় জলাবদ্ধতার কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন এসব এলাকার মানুষ। সরল এলাকার অনিল কুমার মন্ডল জানান, টানা ৪ দিনের বৃষ্টিতে যে পানি জমেছে তা নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা নাই। অজেদ আলী জানান, ড্রেনের ব্যবস্থা না থাকায় বাড়ীর উঠানে পানি উঠে গেছে। পরিবার পরিজন নিয়ে আমরা চরম দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছি। শিক্ষার্থী মারিয়া খাতুন জানান, বাড়ির সামনে জমে থাকা পানি পাড়ি দিয়ে স্কুল কলেজে যেতে হচ্ছে। কাউন্সিলর এস এম তৈয়েবুর রহমান জানান, মেয়র সাহেবের পশ্চিম পাশের বিলের মধ্যে যারা বসবাস করে এবং শান্তির মোড়, গগন বাবু রোডে বেশ কিছু বাড়িতে পানি উঠেছে। 

রবি শংকর মন্ডল জানান, ফসিয়ার রহমান মহিলা কলেজ ও সানফ্লাওয়ার স্কুলের আশপাশ এলাকায় কিছুটা জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ইমরান সরদার জানান, ওয়াপদার কলোনী ও কবরস্থানের আশপাশ এলাকায় মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। গড়ইখালী ইউপি চেয়ারম্যান জি এম আব্দুস সালাম কেরু জানান, যেসব এলাকায় জলাবদ্ধতার সম্ভাবনা রয়েছে যেসব এলাকার খালের নেট-পাটা অপসারণ করা হয়েছে। 

মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর জানান, পৌরসভার যেসব এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে এসব এলাকায় অপরিকল্পিতভাবে বাড়ি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। অনেক জায়গায় ড্রেনের কোন জায়গা না রেখেই প্রাচীর দিয়ে পাকা বাড়ি-ঘর নির্মাণ করায় বর্ষা মৌসুমে দুর্ভোগের এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম জানান, বর্ষার সাথে সাথে খালের নেট-পাটা অপসারণসহ পানি নিষ্কাশনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইউনিয়নের সকল চেয়ারম্যানদেরকে নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে। নির্দেশনা অনুযায়ী স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা পানি নিষ্কাশনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা