• বৃহস্পতিবার   ২৬ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৯

  • || ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

আজকের খুলনা

এটাই ছিল তাদের শেষ সেলফি!

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০২২  

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় আবদুর রহিম মাসুম (২০) ও আতিকুল ইসলাম (২১) মোটরসাইকেল আরোহী দুই বন্ধু প্রাণ হারিয়েছেন। শনিবার (২৩ এপ্রিল) সকালে ঢাকা–খুলনা মহাসড়কের কাশিয়ানী উপজেলার মাজড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আবদুর রহিম মাসুম ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও খুলনার খালিশপুরের আব্দুর রহমানের ছেলে। আতিকুল ইসলাম সাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও একই এলাকার ইয়াহিয়া খানের ছেলে। তাদের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে গ্রামজুড়ে। দুর্ঘটনার আগে তোলা দুই বন্ধুর শেষ সেলফি ভেসে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ছবি দেখে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন আত্মীয়স্বজন-সহপাঠীরা।

দুই বন্ধু ঈদের ছুটিতে বাড়ি ফিরছিলেন। শনিবার সকালেই খুলনার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছিলেন তারা। ফেরি পার হওয়ার সময় নিয়েছিলেন সেলফি। হাসি মুখের সেই সেলফিই যে জীবনের শেষ ছবি হবে তা হয়তো তখনো কল্পনাও করেননি তারা। দু’জনের হাসি মুখের ছবি দেখেছেন তার বন্ধুরা। কিন্তু এই ছবি আপলোড দেয়ার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই অকালে ঝরে যায় দুটো প্রাণ। অপমৃত্যু হয় দুটি স্বপ্নের।

মোটরসাইকেলের প্রতি ভীষণ ঝোঁক ছিল আব্দুর রহিম মাসুমের। খুব একটা চালাতে না জানলেও ঝোঁকের বিষয়টি জানতো সবাই। এই মোটরসাইকেলে চেপে ঈদে বাড়ি যাবার সময়ই মৃত্যু হলো তার। বন্ধুর মোটরসাইকেল নিয়ে ফাঁকা গলিতে চালাতেন। বাসেই বাড়ি যাবার কথা ছিল মাসুমের। কিন্তু মোটরসাইকেলে চেপে বাড়ি যাবার সুযোগ পেয়ে উঠেননি বাসে। বাসে পাঠিয়ে দেন লাগেজ। গতকাল সকালে ঢাকা থেকে খুলনা যাবার সময় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মৃত্যু হয় দু’জন শিক্ষার্থীর।

মাসুমের এক সহপাঠী জানান, ঢাকায় আজিমপুরে থাকতো ওরা দু’জন। মাসুম ও আতিকুল পূর্ব পরিচিত। ২০ তারিখে পরীক্ষা শেষের পর, ওর বন্ধু বলে, যেহেতু বাইক আছে চল বাইকে যাই। ফেরিঘাট পার হওয়ার সময় তারা একটি ছবিও পোস্ট করে। আমি যেটা শুনেছি স্পটে ওর মোবাইল ফোন ভেঙে যায়। এরপর লাস্ট ফোনকল যার সঙ্গে ছিল তাকে ফোন দেয়া হয়। সব সময় হাসতো মাসুম। কোন ঝামেলার মধ্যে ছিল না কোনো সময়। এক কথায় বলা হয়, অনেক ভালো। সময় পেলেই সে বাইক পার্কিং থেকে বের করে চালাতো। সে শুধু সোজা যাওয়া আসা করতে পারতো। বাইক ঘুরানো কিংবা টার্ন নিতে পারত না। ওর বাসে যাবার কথা ছিল। কিন্তু পরে দুই বন্ধু মিলে সিদ্ধান্ত বদলে লাগেজ বাসে তুলে দেয়।

কাশিয়ানী থানার উপ-পরিদর্শক সজীব কুমার মন্ডল জানান, সকালে ওই দুই তরুণ মোটরসাইকেলে যোগে ঢাকা থেকে খুলনা যাচ্ছিলেন। তাদের বহনকারী যানটি কাশিয়ানী উপজেলার মাজড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছলে ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটি মহাসড়কের পাশের গাছে সাথে সজোড়ে ধাক্কা খায়। অন্যদিকে মোটরসাইকেলটি খাদে ছিটকে পড়ে দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে আবদুর রহিম মাসুম নিহত ও তার বন্ধু আতিকুল ইসলাম মারত্মক আহত হন। পরে পুলিশ ও স্থানীয়রা আতিকুলকে উদ্ধার করে কাশিয়ানী উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপরে নিহতদের মরদেহ ভাঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা