শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

মেয়েদের মোটা দেখায় যেসব পোশাকে

লাইফ ষ্টাইল ডেস্ক

আজকের খুলনা

প্রকাশিত : ১২:২৩ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শনিবার

বাংলায় একটি প্রবাদ আছে- ‘প্রথমে দর্শণধারী, পরে গুণবিচারী’। অর্থাৎ একটি মানুষকে দেখতে কেমন লাগছে প্রথম দর্শনে সেটিই বিচার্য। পোশাক একজন মানুষকে আকর্ষণীয় করে তোলার পাশাপাশি তার ব্যক্তিত্বকেও প্রকাশ করে। তবে পোশাকটি দেখতে সুন্দর হলেই যে সেটি পরলে আপনাকে সুন্দর দেখাবে তেমন না-ও হতে পারে। একই পোশাকে একজনকে অনেক ভালো দেখাতে পারে আবার অপর আরেকজনকে নাও মানাতে পারে। এজন্য শরীরের গড়নের দিকে খেয়াল রেখে পোশাক পরতে হয়।
 

চলুন জেনে নেয়া যাক এমন কিছু পোশাক সম্পর্কে যেগুলো পরলে মেয়েদেরকে বেশ মোটা দেখায়-

আনারকলি : আনারকলি ড্রেসটি অনেক ঘেরওয়ালা লং ফ্রকের মত। কোমরে হালকা কুচি দিয়ে নিচের অংশটুকু বেশ ছড়ানো থাকে। ফলে এই পোশাকটি পরলে মেয়েদের বেশি মোটা দেখায়।
 
পালাজ্জো : এই পোশাকটি আগেকার ডিভাইডার পায়জামার মতই। তবে পালাজ্জো অনেক বেশি ছড়ানো হয়ে থাকে। এর ফলে একটু স্বাস্থ্য ভালো মেয়েদের আরও অনেক বেশি মোটা দেখায়।

লং স্কার্ট : স্কার্ট পোশাকটি ওয়েস্টার্ন একটি পোশাক। ওয়েস্টার্ন মেয়েরা একটু পাতলা গড়নের হয়ে থাকে। এজন্য লং স্কার্ট ছড়ানো হয়ে থাকে যার ফলে তাদের স্বাস্থ্য কিছুটা ভালো দেখায়। কিন্তু এশিয়ান মেয়েদের গায়ের গড়ন একটু ভারী হয়। এক্ষেত্রে ওয়েস্টার্ন ছড়ানো এই পোশাকটি পরলে তাদের আরও বেশি মোটা দেখায়। 

স্কিন টাইট জিন্স : ঢিলেঢালা পোশাক যেমন মেয়েদের অনেক বেশি মোটা দেখায় তেমনি স্কিন টাইট জিন্স পরলেও বেশ খানিকটা মোটা দেখায়। কেননা এই পোশাকটি গায়ের সঙ্গে বাজেভাবে জড়িয়ে থাকে। ফলে শরীরের চর্বিজাতীয় অংশ খুব সহজেই চোখে পড়ে। এ কারণে এই ধরনের পোশাকে মেয়েদের বেশি মোটা দেখায়।

বেশি ঢোলা জামা : বেশি ঢোলা জামা গায়ের সঙ্গে ফিটিং হয়ে থাকে না। এ কারণে মেয়েরা যতটা না মোটা তার চেয়ে অনেক বেশি মোটা দেখায় এই ধরনের পোশাক।
 

তাহলে স্লিম দেখাতে কি করবেন?

১. আপনার পিঠ যদি চওড়া হয় তাহলে বোট নেক বা হাই নেকে আপনাকে মোটা দেখাতে পারে। সেক্ষেত্রে ছড়ানো গলার বা ডিপ কাট ব্লাউস বা টপ বা কুর্তি পরলে আপনাকে অনেকটা রোগা দেখাবে।

২. আপনি কোন্ রঙের পোশাক নির্বাচন করবেন তার ওপরও আপনার রোগা বা মোটা দেখানো নির্ভর করে। সলিড কালার, যেমন- মেরুন, কালো, নীল রঙের ড্রেস পড়লে অনেক বেশি রোগা লাগে।

৩. আপনার ড্রেস মেটেরিয়াল নির্বাচন সঠিক হওয়া উচিৎ। ভেলভেট, সারটিন, লেদার ইত্যাদি আপনার দেহের গঠনকে ভারী করে তোলে। সেক্ষেত্রে সুতি, ডেনিম, সিল্ক, উল ইত্যাদি মেটেরিয়ালে আপনাকে অনেক বেশি স্লিম দেখাবে এছাড়া মেটেরিয়াল যদি প্রিন্টেড হয় সেক্ষেত্রে হালকা ও ছোটো প্রিন্ট পড়লে আপনাকে অনেক বেশি স্লিম বা রোগা দেখাবে।

৪. আমাদের অনেকেরই হাত বা পা দেহের তুলনায় রোগা বা মোটা হয়। ধরে নিন আপনার দেহের তুলনায় হাতগুলি বেশ রোগা ও সুন্দর তাহলে স্লিভলেস বা ছোটো স্লিভস আরামসে পরতে পারেন। কিন্তু যদি হাত মোটা হয়, সেক্ষেত্রে ফুল বা থ্রি কোয়াটার স্লিভস আপনার সঠিক নির্বাচন। আপনার পা সরু হলে নি-লেন্থ ড্রেসগুলি পরলে কিন্তু আপনাকে রোগা দেখাবে। 

৫. স্ট্রাইপ মোটিফ আজকাল ফ্যাশনে ইন। তবে আপনার হাইট ও ওয়েট অনুযায়ী আপনার এই ধরনের পোশাক কেনা উচিৎ। রোগা দেখতে চাইলে ভার্টিকাল স্ট্রাইপ ড্রেস বা টপ বা প্যান্ট ট্রাই করে দেখতে পারেন।

৬. মোটা গড়নের মেয়েদের মাঝারি ঝুলের কামিজ পরলে ভালো দেখায়। খুব লম্বা বা ঝোলা টাইপের কামিজ পরবেন না। আবার খুব খাট আকারের কামিজও পরবেন না। কামিজে হাতের কাজ, ব্লক, প্রিন্ট, এমব্রয়ডারির কাজ থাকলে তা যেন লম্বালম্বি হয়। আড়াআড়ি লাইনের কাজ এড়িয়ে চলুন।

৭. খুব ঢিলেঢালা বা বড় পা-ওয়ালা সালোয়ার এড়িয়ে চলুন। আবার খুব চাপা ধরনের সালোয়ারও পরবেন না। বরং মাঝারি রকমের চাপা সালোয়ার পরতে পারেন।

৮. পাশ্চাত্য পোশাক বা ফতুয়ার সাথে জিনস পরতে চাইলে একটু গাঢ় রঙের জিনস পরুন। নেভি ব্লু, কালো, গাঢ় ধূসর রঙের জিনস যেকোনো পোশাকের সাথেই পরতে পারেন।

৯. শার্ট পরতে চাইলে এক রঙা শার্ট বেছে নিন। লম্বা বা কোনাকুনি স্ট্রাইপের ফিটিং শার্টও ভালো লাগবে। স্কার্ফ ব্যবহার করলে ভি বা ওয়াই ম্যাপে বাঁধুন।

আয়নায় ভাল ভাবে পরখ করুন আপনার পোশাকটিতে আপনাকে মানাচ্ছে কি না। এ ব্যাপারে প্রিয়জনের মতামত নিতে পারেন। আপনার মন রাখার জন্য নয়, সৎভাবে আপনার পোশাকের সমালোচনা করতে বলুন তাকে।