• সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৮

  • || ১৯ সফর ১৪৪৩

আজকের খুলনা

কট্টর জামায়াতপন্থী ড. দিলারাকে বিদেশে কোন মিশনে পাঠাচ্ছেন খালেদা?

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  

বিএনপি চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে শনিবার রাতে দেখা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সাবেক প্রধান ড. দিলারা চৌধুরী। গোপন এই সাক্ষাতের ব্যবস্থা করে দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কট্টর জামায়াত ভাবাপন্ন হিসেবে পরিচিত ড. দিলারা চৌধুরীর সাক্ষাত নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা-কল্পনা ও প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে। খুব শিগগিরই দীর্ঘ সময়ের জন্য বিদেশে চলে যাবেন ড. দিলারা। বিশ্বস্ত সূত্র জানাচ্ছে,এমন একটি দেশে তিনি যাচ্ছেন, যেখানে বিএনপি ও জামায়াতের কয়েকজন শীর্ষ নেতা আত্মগোপন করে রয়েছেন। তাই রাজনৈতিক বোদ্ধামহল মনে করছেন, নতুন করে জামায়াতের একটি অংশকে কৌশলে কাছে রাখতে ড. দিলারাকে বিশেষ মিশনে পাঠাচ্ছেন খালেদা জিয়া। 
বিশেষ একটি সূত্র জানাচ্ছে, বিএনপির নেতাদের ওপর এখন আর ভরসা করতে পারছেন না বেগম খালেদা জিয়া। কারা অন্তরীণ থাকার সময় বিএনপি নেতারা কোনো আন্দোলন না করে নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন-এমন অভিযোগ খালেদা জিয়া প্রায়শ: তার স্বজনদের কাছে করে থাকেন। এছাড়া তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন বিশেষ সুবিধা নিয়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে যাওয়া নেতা কর্মীরা মামলা মোকাদ্দমা পরিচালনার ক্ষেত্রে তার পাশেদাঁড়াননি। এ সূত্রটি আরো জানিয়েছে, কিছুদিন আগে খালেদা জিয়া তার এক ঘনিষ্ট মহলে দলীয় কয়েকজন নেতাকে ইংগিত করে মন্তব্য করেছেন ‘দুধ কলা দিয়ে আমি এতোদিন কালসাপ পুষেছিলাম।’ এ অবস্থায় খালেদা এখন জামায়াতে কাঁধে পুরো ভর দিয়ে দাড়াঁতে চাইছেন। 


ড. দিলারা চৌধুরী সরাসরি জামায়াত না করলেও মনে প্রাণে জামায়াতের আদর্শ ধারণ করেন বলে জানিয়েছেন তার বিশ^বিদ্যালয়ের কয়েকজন সহকর্মী। বিএনপির বিভিন্ন পরামর্শক সভায় তাকে অসংখ্যবার দেখা গেছে।জামায়াত থেকে বাদ পড়া এবং জামায়াত মনোভাবাপন্নদের নতুন প্লাটফর্ম হিসেবে ২০১৯ সালের এপ্রিলে সামনে আসা ‘জন আকাঙ্খার বাংলাদেশে’র আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এই দিলারা চৌধুরী। ২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি কক্সবাজারেওই সংগঠনের একটি কর্মশালাতে বক্তব্যও রাখেন দিলারা। স্যাটেলাইট টেলিভিশন গুলোর বিভিন্ন টক শোতে সরকার বিরোধী বক্তব্য দিতে গিয়ে অশালীন ও আপত্তিকর কথাবার্তা বলার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ রয়েছে ড, দিলার বিরুদ্ধে। তারস্বামী ডব্লিউ জি চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধকালীন ইয়াহিয়া খানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা ছিলেন বলে কথিত রয়েছে। জনশ্রুতি রয়েছে, মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের গণহত্যা, নারী ধর্ষণের অন্যতম পরামর্শদাতা ছিলেনতার স্বামী।


বৈঠকের বিষয়ে ড. দিলারা চৌধুরী বলেন, আমি এবং আমার স্বামী ডব্লিউ জি চৌধুরী জেনারেল জিয়াউর রহমানকে বহুদিন ধরে চিনতাম। বেগম খালেদা জিয়াও সব সময় আমার সঙ্গে সৌজন্যমূলক ব্যবহার করেছেন। তিনি যেহেতু দীর্ঘদিন কারাগারে ছিলেন, তাই দেখতে গিয়েছিলাম। এর আগেও আমি মির্জা ফখরুল ইসলামকে (বিএনপির মহাসচিব) বলেছিলাম যে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে চাই। তখন তিনি আমাকে বলেছিলেন ম্যাডাম অসুস্থ। এবার আমি তাকে (মির্জা ফখরুলকে) বললাম যে, অনেক দিনের জন্য দেশের বাইরে যাবো, তার আগে একটু দেখা করবো খালেদা জিয়ার সঙ্গে। এই জন্যই তিনি সাক্ষাতের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।দেশের রাজনীতি নিয়ে কোনো আলাপ না হলেও আন্তর্জাতিক রাজনীতি নিয়ে তাদের মধ্যে আলাপ হয়েছে বলে উল্লেখ করেন ড. দিলারা। তিনি বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক রাজনীতি নিয়ে আলোচনা করেছি। 

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা