• সোমবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ৪ ১৪২৮

  • || ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আজকের খুলনা

দিঘলিয়ার লাখোয়াটী গ্রামে দফায় দফায় হামলা-ভাংচুর

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০২২  

খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার বারাকপুর ইউনিয়নের লাখোহাটি গ্রামে পুলিশের উপস্থিতিতে সোহেল, আলম ও জাহাঙ্গীর হোসেনের বাড়িতে দফায় দফায় হামলা ভাংচুর, লুটপাট এবং অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের প্রতিপক্ষ আনছার শেখের লোকজনের বিরুদ্ধে।

এলাকাবাসী জানায়, প্রতিপক্ষের ভয়ে দীর্ঘদিন এলাকার বাইরে থাকার পর মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) বারাকপুরের লাখোয়াটী গ্রামের সোহেল কামারগাতী পুলিশ ক্যাম্পের সহায়তায় নিজে বাড়িতে প্রবেশ করে। এ সংবাদ প্রতিপক্ষ একই গ্রামের চার বাড়ির আনছার শেখের লোকজন জানতে পারে। প্রায় ১০০ থেকে দেড়শ লোকজন জড়ো হয়ে তাঁরা সোহেল এবং তার অপর দুই ভাইয়ের বাড়িতে দফায় দফায় হামলা, ভাংচুর, লুটপাট এবং অগ্নিসংযোগ চালায়। এ সময় হামলাকারীরা বাড়ির মহিলাদের লাঞ্চিত করে। ঘর থেকে রান্না করা হাড়ি-পাতিল পার্শ্ববর্তী পুকুরে ফেলে দেয়। এমনকি গোয়ালঘরে ঢুকে গরুকে পর্যন্ত মারধর করে। ঘটনার সময় উপস্থিত কামারগাতী ক্যাম্পের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে দিঘলিয়া থানা পুলিশকে জানালে থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোঃ আহসানউল্লাহ চৌধুরী এবং ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রিপন কুমার সরকারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এরপর থেকে এলাকায় থমতমে অবস্থা বিরাজ করছে।

স্থানীয়রা আরও জানায়, সোহেল এবং তাঁর অপর দুই ভাই বর্তমান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গাজী জাকির হোসেনের সমর্থক। লাখোয়াটী গ্রামের শেখ আনছার আলী এবং বারাকপুরের গাজী জাকির হোসেনের মধ্যে বিরোধ দীর্ঘদিনের। তাঁদের দু’জনের বিরোধের কারণে ইউনিয়নে তাঁদের সমর্থকদের মধ্যে একাধিক হামলা, ভাংচুর লুটপাট এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। দু’ পক্ষের সমর্থকদের বিরুদ্ধ থানায় একাধিক মামলা হয়েছে। এলাকা ছাড়া হয়েছে অনেকে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা