ব্রেকিং:
ফেসবুকে অবমাননাকর পোস্ট: সেই পরিতোষ সরকার গ্রেফতার সাম্প্রদায়িক অপশক্তির তৎপরতা প্রতিরোধের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
  • বুধবার   ২০ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ৫ ১৪২৮

  • || ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আজকের খুলনা

বাংলাদেশের ‘কৌশলগত মিত্র’ হয়ে উঠছে তুরস্ক!

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১  

দ্বিপাক্ষিক নানা চড়াই-উৎড়াই পেরিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ক্রমেই ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠছে বাংলাদেশ ও তুরস্ক, সেটি কৌশলগত মিত্রতার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। একান্ত আলাপচারিতায় এমন আভাস দিয়ে একাধিক শীর্ষ কূটনীতিক বলছেন, কৌশলগত কারণেই বিষয়টি এত তাড়াতাড়ি স্বীকার করতে নারাজ ঢাকা।

তুরস্কের কাছ থেকে বিভিন্ন ধরনের নিরাপত্তা সামগ্রী কিনলেও কৌশলগত সম্পর্কের বিষয়ে সরাসরি কোনো মন্তব্য করেননি পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। তিনি বলেন, আঙ্কারার নিরাপত্তা সামগ্রীগুলো ন্যাটোর মানসম্পন্ন, দামও একটু কম। এই ক্রয়ের ক্ষেত্রে কোনো শর্তারোপ করা হয়নি, সেটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

অতীতে দুই দেশের সম্পর্কে কিছু সমস্যা থাকলেও এখন আর সেটি নেই দাবি করে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, আঙ্কারার কাছে ঢাকার অবস্থান অনেকটাই পরিষ্কার। আমাদের স্পর্শকাতর বিষয়গুলো ধীরে ধীরে বুঝতে শুরু করেছে তারা। উচ্চাকাঙ্ক্ষার তুরস্কের ও বাংলাদেশের আগ্রহের ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে মিল রয়েছে, সেগুলো উভয় দেশকে কাছাকাছি আসতে সাহায্য করছে।

দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ একটি ‘গুরুত্বপূর্ণ শক্তি’ হিসেবে আবির্ভূত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ঢাকার এই অগ্রগতির বিষয়টি ভালো করেই বুঝতে পারছে আঙ্কারা। তারাও মধ্যপ্রাচ্য ও ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে উদীয়মান শক্তি রূপে আবির্ভূত হয়েছে। এ ছাড়া রোহিঙ্গা সংকটকে কেন্দ্র করে দুই দেশ আরো ঘনিষ্ঠ হয়েছে।

মিয়ানমারে দমনের মুখে ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশ আশ্রয় দিয়েছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্র সচিব আরো বলেন, ওআইসিতে ভারসাম্যপূর্ণ নীতি নিয়েছে বাংলাদেশ। এটিও তুরস্ক পর্যবেক্ষণে নিয়েছে বলে মনে করে ঢাকা। এসব উপাদানের জন্য দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো বাড়াতে দুই দেশ খুবই আগ্রহী। কৌশলগত সম্পর্কর বিষয়ে তিনি বলেন, মুসলিম দেশ দুটির অনেক সাধারণ উপাদান আছে এখানে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ঢাকার বিশ্লেষকেরা জানিয়েছিলেন, প্রধান দুটি লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও তুরস্ক সাম্প্রতিক সময়ে ক্রমেই ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠছে। একদিকে মুসলিম বিশ্বে নিজেদের প্রভাব-প্রতিপত্তি পুনরুদ্ধারে তুরস্কের সুদূরপ্রসারী প্রচেষ্টা। অন্যদিকে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানসহ বাণিজ্য সম্প্রসারণে বাংলাদেশের সদিচ্ছা। এ কারণে দু’দেশের সম্পর্ক ‘অনন্য উচ্চতায়’ পৌঁছাতে যাচ্ছে, যা শিগগিরেই স্পষ্ট হয়ে উঠতে পারে।

তারা বলছেন, সামরিক শক্তিতে শক্তিশালী তুরস্ক ন্যাটো জোটের সদস্য, জাতিসংঘ ও ওআইসিসহ আন্তর্জাতিক ফোরামেও শক্ত অবস্থান রয়েছে। দেশটির সঙ্গে অতীতে দূরত্ব তৈরি হলেও রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সমর্থন দেয়ায় সম্পর্ক জোরদার হয়। এরপর আঙ্কারার সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়ানোর প্রতি মনোযোগী হয় ঢাকা, তাতে আশানুরূপ সাড়াও আসে। বর্তমানে বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে বার্ষিক ১ বিলিয়ন ডলারের দ্বিমুখী বাণিজ্য হলেও তা ২ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার চেষ্টা চলছে। এর সঙ্গে প্রতিরক্ষা সহযোগিতাও বৃদ্ধি পাওয়ায় দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক গভীর থেকে গভীরতর হচ্ছে বলে মনে করা হয়।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা