• শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৮

  • || ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

আজকের খুলনা

চলনবিলের রাস্তা বদলেছে যোগাযোগের চিত্র

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২১  

নাটোরের চলনবিলে নির্মিত কংক্রিটের ডুবন্ত বা সাবমার্সিবল রাস্তায় বদলে গেছে এখানকার যোগাযোগের চিত্র। শুষ্ক মৌসুমে ইঞ্জিনচালিত গাড়িতে চলাচল করছেন একানকার মানুষজন। পাশাপাশি পর্যটনের নতুন আকর্ষণ হয়েছে রাস্তা দু’টি। বিস্তৃত জলরাশির অপার সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন ভিড় করছেন বিনোদন প্রেমীরা।

যতদূর দৃষ্টি যায়, পুরোটাই থইথই পানি। দূরের গ্রামগুলো যেন এক একটা ভেসে থাকা দ্বীপ। নাটোরের বিল ও হাওর ঘেরা এই এলাকাগুলোতে বর্ষায় যোগাযোগের সহজ বাহন নৌকা।

পানিতে ঘেরা এই গ্রামীণ জনপদে এখন নতুনত্বের ছোঁয়া লেগেছে। জেলার হালতিবিল ও চলন বিল এলাকায় পানির প্রবাহ স্বাভাবিক রেখে, ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ সাবমার্সিবল রাস্তা বানিয়েছে সরকার। এই রাস্তা বদলে দিয়েছে নলডাঙ্গা ও সিংড়া উপজেলার যোগাযোগের চিত্র। বর্ষায় পানিতে তলিয়ে থাকলেও শুষ্ক মৌসুমে এই পাকা রাস্তা ধরে ইঞ্জিনচালিত গাড়িতে চড়ে সহজেই যাতায়াত করতে পারে মানুষ।

দুই পাশে পানির ধারার মাঝে সীমারেখা টানা হালতিবিলের এই সড়ক দেখতে আসছেন পর্যটকরাও।

তথ্য ও যোগাযাগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, পর্যটনের এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে তাই সাবমার্সিবল রাস্তা ঘিরে নেয়া হচ্ছে নানা পরিকল্পনা।

চলনবিল এলাকায় আরও ৫০ কিলোমিটার সাবমার্সিবল রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা