• বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ১০ ১৪৩১

  • || ১৭ মুহররম ১৪৪৬

আজকের খুলনা

কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা, অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের ছেলে

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১ জুন ২০২৪  

ভাঙ্গায় এক কিশোরীকে এক্সপ্রেসওয়ের সার্ভিস রোড থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে ভাঙ্গা থানা পুলিশ। এর মধ্যে প্রধান অভিযুক্ত ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আ. খালেক মোল্লার ছেলে সাইফুর রহমান সুজন (২১)। 

গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের সার্ভিস রোডের ঘারুয়া ইউনিয়নের বামনকান্দা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে কিশোরীর মা বাদী হয়ে শনিবার (১ জুন) ভাঙ্গা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা করেছেন।  পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের পাঁচকুল গ্রামের সাইফুর রহমান সুজন (২১), গোয়ালদী গ্রামের তাহসিন মুন্সী (২০) ও মুন্না মিয়াকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে। কিশোরীর অভিযোগ ও ভাঙ্গা থানা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (৩১ মে) মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার এক শিক্ষার্থী (১৫) তার কথিত প্রেমিককে নিয়ে ভ্যানে করে ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের বিশ্বরোড মোড়ে ঘুরতে আসে। 

ভাঙ্গা থেকে পুনরায় ভ্যানযোগে এক্সপ্রেসওয়ের সার্ভিস রোড দিয়ে শিবচরের দিকে যাওয়ার সময় ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের বামনকান্দা নামক স্থানে ফাঁকা জায়গায় পেছন থেকে একটি মোটরসাইকেলের তিন আরোহী ভ্যানের গতিরোধ করে। এরপর মোটরসাইকেল আরোহীরা ভ্যানচালক শিবচর উপজেলার গুপ্তেরকান্দি গ্রামের আলমগীর সরদারকে মারধর করে।

পাশাপাশি কিশোরীর কথিত প্রেমিককে মারধর করে কিশোরীকে রাস্তার পাশের জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময়ই সার্ভিস রোড দিয়ে ভাঙ্গা থানার টহল পুলিশের একটি দল যাচ্ছিল। পুলিশ জঙ্গলে চিৎকার শুনে ও কিশোরীর প্রেমিকের কাছে বর্ণনা শুনে জঙ্গলে গিয়ে কিশোরীকে উদ্ধার করে। এ সময় ধর্ষণচেষ্টায় লিপ্ত থাকার অভিযোগে চেয়ারম্যানপুত্র সাইফুর রহমান সুজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে পুলিশ।

এ সময় তার অন্য দুই সহযোগী পালিয়ে যায়। সুজনের স্বীকরোক্তি অনুযায়ী আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে সুজনের অপর দুই সহযোগী তাহসিন মুন্সী ও মুন্না মিয়াকে আটক করে ভাঙ্গা থানা পুলিশ। শনিবার কিশোরীর মা বাদী হয়ে ভাঙ্গা থানায় মামলা করার পর আটক তিনজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।
 
এ ব্যাপারে ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন আল রশিদ বলেন, মেয়েটি তার কথিত প্রেমিককে নিয়ে ভাঙ্গা থেকে ঘুরে ভ্যানযোগে শিবচর যাওয়ার সময় ভাঙ্গা বামনকান্দা এলাকায় ধর্ষণচেষ্টার শিকার হয়। তাকে ভ্যান থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। এর মধ্যে প্রধান অভিযুক্ত সাইফুর রহমান সুজন ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আ. খালেক মোল্লার ছেলে। গ্রেপ্তারকৃত তিনজনকে আজ শনিবার দুপুরে ফরিদপুর আদালতে পাঠানো হবে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা