আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
পরীক্ষায় জালিয়াতি, আ’লীগ থেকে বহিস্কার এমপি বুবলী চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেএমবির ৩ সদস্য আটক জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদ দমনে অভিযান চালাবে এন্টি টেররিজম ইউনিট আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা মামলার শুনানি ১০ ডিসেম্বর ২ উইকেট হারালো ভারত : ১৩ ওভারে সংগ্রহ ৫১ রান মুন্সিগঞ্জের দুর্ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ মাথায় আঘাত পাওয়া লিটন দাস কলকাতা টেস্টে আর খেলতে পারছেন না উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ, বখাটের লাথিতে মেয়ের বাবা নিহত

শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
হাসপাতাল থেকে মাঠে ফিরলেন লিটন-নাঈম আমার সন্তানের অধিকার ছাড়বনা : বিদিশা এরশাদ কুষ্টিয়ায় ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ডিগ্রি প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শুরু ২৪ নভেম্বর ধর্মঘটের অজুহাতে চড়া সবজি-মাছের বাজার লন্ডনে সন্ত্রাসীদের গুলিতে প্রাণ গেল বাংলাদেশী যুবকের বরিশাল জেলা আদালতের সেরেস্তাদার সাময়িক বরখাস্ত দুর্দশাগ্রস্ত ঋণ, বিপাকে দেশের ব্যাংক খাত
২৪

২য় দিনের মত ১৭ দফা দাবিতে উত্তাল বশেমুরবিপ্রবি

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ১৭ দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সাধারণ শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।আজ বুধবার (৬ নভেম্বর) সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা এই অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা যায়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের দায়িত্ব পালন করার সময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সাধারণ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত ভর্তি ফি, হল ভাড়া, ক্রেডিট ফি, চিকিৎসা ফি আদায় করেছে এবং সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে। এসব মাত্রাতিরিক্ত ফি এর বিরুদ্ধে ও নানা অবকাঠামোগত উন্নয়নের দাবিতে শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

১৭ দফা দাবির মধ্যে উল্লেখযোগ্য
ক্রেডিট ফিস ১০০ টাকা থেকে ৫০ টাকা করতে হবে, হল ভাড়া রুমে ১৫০ টাকা ও গণরুমের ভাড়া প্রতিসিট প্রতি ২৫ টাকা করতে হবে, ক্লাস উপস্থিতি হার ৫০ শতাংশ করতে হবে এবং কোনো শিক্ষার্থীর উপস্থিতি ৫০ শতাংশের কম হলে তাকে জরিমানাসাপেক্ষে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে হবে, কেন্দ্র ফি ১০০ টাকা থেকে ৫০ টাকা করতে হবে, পরিবহন ফি ৬০০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা করতে হবে, পরীক্ষায় ইমপ্রুভমেন্ট সিস্টেম চালু করতে হবে, বিভাগীয় উন্নয়ন ফি বাতিল করতে হবে, চিকিৎসা ফি ২২৫ টাকা থেকে ১০০ টাকা করতে হবে। এ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা অবকাঠামোগত উন্নয়নের দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলরত এক শিক্ষার্থী জানান, শিক্ষা কোনো পণ্য নয় যে টাকা দিয়ে কিনতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় আসে দেশের সকল মানুষের কর থেকে। আমরা শোষণের শিকল ভেঙে স্বৈরাচারী খোন্দকার নাসিরউদ্দিনকে তাড়িয়েছি। আর কোনো অন্যায়ের সাথে আপস নয়। আমরা আর কোনো অতিরিক্ত ফি দেব না। আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা এই অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাব।

ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ড. মো. শাহাজাহান বলেন, শিক্ষার্থীরা আমাকে তাদের দাবিসমূহ লিখিত আকারে দিয়েছে এবং আমরা মনে করি তাদের অধিকাংশ দাবি যৌক্তিক। কিন্তু বেশ কিছু দাবি-দাওয়া আইনানুযায়ী আমার ক্ষমতার বাইরে। পূর্ণাঙ্গ উপাচার্য নিয়োগের আগ পর্যন্ত এ বিষয়গুলো মীমাংসা করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের নিয়মিত ক্লাস-পরীক্ষা চালিয়ে যেতে এবং নতুন উপাচার্য আসলে উক্ত বিষয়গুলো সমাধান করা হবে বলে আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি, নারী কেলেঙ্কারি, ভর্তি বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অভিযোগে শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলনের মুখে পদত্যাগ করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর