আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধু বিপিএল : টস জিতে ফিল্ডিংয়ে খুলনা মালবাহী বগী লাইনচ্যুত হওয়ায় ময়মনসিং-চট্রগ্রাম রেল যোগাযোগ বন্ধ ঝিনাইদহে আলমসাধুর চাপায় শিশু নিহত সুন্দরবনে দুই জেলেকে অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি চট্টগ্রামে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ জনের মৃত্যু, আহত ৫

শুক্রবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৪ ১৪২৬   ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
টাঙ্গাইলে বিল থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার বিশ্ব ইজতেমার ২য় পর্বে মারা গেলেন আরও এক মুসল্লী নারী কাউন্সিলর প্রার্থী পান্নাকে বহিষ্কার করলো বিএনপি রাজধানীতে বাসচাপায় মামা-ভাগ্নের মৃত্যু
২৫৯৪

১০ জানুয়ারী, অপেক্ষায় পুরো দেশ প্রিয় নেতা ঘরে ফিরছেন

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২০  

আকাশবাণীর খবরে বলা হয়, রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় নয়াদিল্লি থেকে বিশেষ বিমানে ঢাকা পৌঁছাবেন বঙ্গবন্ধু। নেতা আসছেন দেশে তাই বিদেশ থেকেও সাংবাদিকরা ঢাকায় এসেছেন সেই মাহেন্দ্রক্ষণ দেখতে। ৯ জানুয়ারি সানডে টাইমস ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ মুজিবুর রহমানের বৈঠক শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। ৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুকে বহনকারী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বিশেষ বিমানটি হিথ্রো বিমানবন্দর ছাড়ার পর বিবিসি ঘোষণা দেয়, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের উদ্দেশে যাত্রা করেছেন। সেই বিশেষ বিমানে ভারতে যাত্রাবিরতি করে ১০ জানুয়ারি সোনার বাংলার

দৈনিক বাংলা ১০ জানুয়ারি ৭১ এর খবর বলছে, ‘বিমানবন্দর থেকে বঙ্গবন্ধু সরাসরি রেসকোর্স ময়দানে যাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। নেতা আসছেন, সাড়ে সাত কোটি বাঙালির প্রিয় নেতা বঙ্গবন্ধু আসছেন, সবাই সেই প্রহর গুনছেন। রিকশাচালক থেকে পত্রিকার হকার, কারখানার শ্রমিক কিংবা দোকানদার, অফিস আদালতের কর্মচারী, ছাত্র-ছাত্রী, বাড়ির গৃহিণী উন্মুখ হয়ে রয়েছেন। কী বলবেন নেতা, কেমন আছেন তিনি। সারাদেশ থেকে মানুষ ঢাকার পথে রওনা দিতে শুরু করে আগের দিন থেকেই।’

অন্যদিকে, বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব টেলিফোনে ৮ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে খুব অল্প সময় কথা বলেন। দেশবাসীর মতো পরিবারের সদস্যরাও অধীর আগ্রহে অপেক্ষায়। তিনি ফিরবেন নিজের মানুষের কাছে। দৈনিক বাংলায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় ‘তিনি এসেই বেগম মুজিবকে উদ্ধার করবেন’। প্রতিবেদনে লেখা হয়, বঙ্গবন্ধু ঢাকায় এসে উঠবেন ধানমন্ডির ১৮ নম্বর রোডের একটি বাড়িতে। বেগম মুজিব যে বাড়িতে গত ৮ মাস বন্দি ছিলেন, সে বাড়িতে নয়। ওই বাড়িটিরই রাস্তার ওপারের একটি বাড়িতে। বেগম মুজিব স্বামী না আসা পর্যন্ত অন্তরীণকালীন ঘাঁটিটি ছেড়ে বের হননি। বঙ্গবন্ধু এলে সেই বাসা থেকে ৩২ এর বাসায় যাবেন তিনি।

এদিকে সে সময় স্বাধীন বাংলাদেশের স্বীকৃতি দেওয়া নিয়েও বেশ আলোচনা চলছে। পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ−বিজয়ী বেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে ফিরলেই সোভিয়েত ইউনিয়ন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারকে স্বীকৃতির ঘোষণা দেবে। সোভিয়েত তৎপরতার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কূটনৈতিক মহল সেই আশা ব্যক্ত করে। ১৯৭২-এর জানুয়ারির এই সময়টি নেতা মুক্ত হওয়ার পরে দেশে না ফেরা পর্যন্ত সব আয়োজনই ছিল তাকে ঘিরে। আর তিনিও ছিলেন ভীষণ আবেগপ্রবণ। লন্ডনে হোটেলে বাংলাদেশিরা যখন তার সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পেয়েছিলেন তখন তারা বলেছিলেন, আপনাকে ফিরে পাবো ভাবিনি। আমাদের ধারণা ছিল ওরা অন্যায়ভাবে আপনাকে ফাঁসি দেবে।

বঙ্গবন্ধুর জবাব ছিল, ‘তাই তো করতে চেয়েছিল, জেলখানার সঙ্গে তারা কবরও তৈরি করেছিল। ভুট্টোর পরিকল্পনা ছিল ফাঁসি দেওয়ার। এখন দেশকে গড়া হবে, সবই তো ধ্বংস করে দিয়ে গেছে।’ আবারও তার চোখে পানি।

 

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর