• শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২০ ১৪২৬

  • || ০৯ শা'বান ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
দেশে করোনায় নতুন মৃত্যু নেই আক্রান্ত আরও ৫ লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ নিতে সংকোচ হলে ঘরেই পৌঁছে দেয়া হবে : ত্রাণ মন্ত্রণালয় সাধারন ছুটিতে ব্যাংক লেনদেনের সময় বাড়ল কঠোর অবস্থানে সেনাবাহিনী
৩২

সফটওয়্যারকেন্দ্রিক অ্যাপ তৈরি করে বিপুল আয়ের সম্ভাবনা

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০২০  

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছে সরকার। বিগত কয়েক বছর যাবত দ্রুত গতিতে আয়ের প্রবৃদ্ধিই নতুন এই লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারনের প্রধান কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। আর এই আয়ের অন্যতম প্রধান মাধ্যম সফটওয়্যারকেন্দ্রিক অ্যাপ তৈরি প্রক্রিয়া। নির্মাতাদের মতে, দেশ এবং পণ্যের যথাযথ প্রচারনার পাশাপাশি বাস্তবমুখী পরিকল্পনা সাজালে অসম্ভব নয় এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন।

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের সব শ্রেণির পাঠ্য বইয়ের, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন-এসসিটিবি বুকস তৈরি করছেন দেশীয় নির্মাতারা।  এছাড়া বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই সংস্থাটির ওয়েবসাইটে পাঠ্যপুস্তকগুলোর পিপিএফ রূপও দেয়া আছে।

মাধ্যমিক পর্যায়ের ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির সাধারণ বিজ্ঞান বিষয়টিকে শিক্ষার্থীদের কাছে আরও সহজ ও আকর্ষণীয় করতে, ২০১৮ সালে 'বিজ্ঞানের রাজ্যে' নামে তিনটি গেম তৈরি করে, দেশীয় অ্যাপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান-ড্রিম সেভেন্টিওয়ান। তবে, শুধু প্রচার-প্রচারণার অভাবে পরিচিতি পায়নি তা।

ড্রিম ৭১ বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশাদ কবির বলেন, আমাদের মার্কেটিংয়ের যে শিক্ষা থাকা দরকার সেখানে যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে।  

গেল বছর সফটওয়্যার খাত থেকে একশো কোটি ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ। তাই ২০২৫ সাল নাগাদ নতুন লক্ষ্যমাত্রা ৫শো কোটি ডলার। অ্যাপ নির্মাতারা বলছেন, লক্ষ্য কঠিন হলেও সঠিক পরিকল্পনায় এটি অর্জন সম্ভব।

ব্রেন স্টেশন ২৩ এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাইসুল কবির বলেন, কঠিন হলেও সঠিক পরিকল্পনায় এটি অর্জন সম্ভব। তবে এই ক্ষেত্রে আমারা যারা বেসরকারি ক্ষেত্রে কাজ করছি তদেরকে সরকারের পুরো সাপোর্ট দিতে হবে। ভালো অর্গানাইজেশনগুলোকে সামনে আগায় আসতে হবে যেন ভাল কোয়ালিটির ছেলেপেলেদের ট্রেনিং দিয়ে তাঁদের নেয়া যায়।

অতীতের বেশকিছু ব্যর্থতার দৃষ্টান্তকে শিক্ষনীয় হিসেবে সামনে রেখে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করেছে সরকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের যে অভিজ্ঞতা হয়েছে গত ১০-১১ বছরে, এখন আমরা আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী যে আমাদের দেশের সফটওয়্যার ডেভেলপাররাই আমাদের যে প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ডেভেলপ করে আমারা আমাদের চাহিদা পূরণ করতে পারবো। মার্কেট অ্যানালাইসিস করে বলতে পারি যে আমরা ২০২৫ সাল নাগাদ ৫শো কোটি ডলার আমরা আয় করতে পারবো।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর