• বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৮ ১৪২৬

  • || ০৭ শা'বান ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
কুমিল্লায় মাইক্রোবাস খাদে পড়ে নিহত ৩ গাজীপুরে একই ঘর থেকে স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানের মরদেহ উদ্ধার সাধারণ ছুটি আরো বাড়ানোর ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর করোনা: ভিডিও কনফারেন্সে দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত
৩৫

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাসে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন প্রত্যাহার

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ১৫ ছাত্রকে বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহারের আশ্বাসে আন্দোলন তুলে নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ভোর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের যৌথ বৈঠকের পর শিক্ষার্থীদের বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার আশ্বাস দেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

পরে ভোর রাত ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদসহ শিক্ষকদের মুক্ত করে দেন ছাত্রছাত্রীরা। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

এর আগে, গতকাল সোমবার রাত ৮টার সময় পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ সমাবেশ শুরু করে। শিক্ষার্থীদের র‌্যাগিংয়ের বিষয় প্রমাণিত না হওয়ায় প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে তার সামনে স্লোগান দিতে থাকে তারা।

এ বিষয় বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংগিংয়ের ঘটনায় বহিষ্কৃত ছাত্ররা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের যৌথ বৈঠকের পর বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে এবং কঠিন শাস্তি না দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। আমাদের দাবি মেনে নিয়ে ক্ষমা করে দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদ। তাই আমরা আন্দোলন প্রত্যাহার করি।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি শের-ই-বাংলা হলে সিনিয়রদের কক্ষে জুনিয়ারদের র‌্যাগ দেয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে। পরে র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ১৫ শিক্ষার্থীকে এক সেমিস্টারের জন্য সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসন। ১৪ জানুয়ারি ছাত্র শৃঙ্খলা বোর্ডের ৩৭তম সভায় সিদ্ধান্ত মোতাবেক তাদের সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। ২৩ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। একই সঙ্গে তাদের কেন সেমিস্টার থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, সে বিষয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছিল।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলেন- কৃষি অনুষদের রমজান শেখ, মো. সামিউল আলম, মো. জাহাঙ্গীর আলাম, মো. সিভাত হোসেন, মো. খালিদ হাসান মিলু ও রনি, বিএএম অনুষদের মনিরুল ইসলাম, মো. মেহেদী হাসান,ভুঁইয়া, মো. আবু সুফিয়ান ও মুক্তাদির আহমাদ, খাদ্য পুষ্টি অনুষদের মো. জায়াদুল হক মিয়াজী ও মো. মাহীন, মৎস্য বিভাগ অনুষদের এসকে সেফাতুল ইসলাম, মো. মোহতাসিম আরাফ ও সাকিব আহমেদ পার্থ।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর