• রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৮ ১৪২৭

  • || ২৮ শা'বান ১৪৪২

আজকের খুলনা

বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত বাংলাদেশ

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ৩০ জানুয়ারি ২০২১  

বর্তমানে ক্যাপটিভ ও নবায়নযোগ্য মিলিয়ে উৎপাদন ক্ষমতা ২৪ হাজার ৪২১ মেগাওয়াট। এক যুগ আগে বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ছয় হাজার মেগাওয়াট। এর বিপরীতে সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারত অর্ধেক (৩৬০০ থেকে ৩৭০০ মেগাওয়াট)। এখন চিত্রটি উল্টে গেছে। বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদা এখন ১৫ হাজার মেগাওয়াটের মতো। উৎপাদন সক্ষমতার দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে এখন দেশে বিদ্যুৎ উদ্বৃত্ত প্রায় ১০ হাজার মেগাওয়াট।

চিত্রটি পাল্টে যাওয়ার কারণ, গত এক যুগে ১১৪টি নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। ২০০৯ সালে বিদ্যুৎকেন্দ্রের সংখ্যা ছিল ২৭টি। এখন সেই সংখ্যা ১৪১টি। তবে বিদ্যুৎ খাতে এর চেয়ে বড় সাফল্য সেবার বিস্তৃতি। দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষকে এরই মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগের আওতায় এনেছে সরকার। মুজিববর্ষেই সারা দেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত হবে।

এই ১২ বছরে বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে তিন গুণের বেশি। ২০০৯ সালে ছিল এক কোটি আট লাখ। এখন গ্রাহক হয়েছে তিন কোটি ৯১ লাখ। ওই সময় মাথাপিছু বিদ্যুৎ উৎপাদন ছিল ২২০ কিলোওয়াট ঘণ্টা। বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১২ কিলোওয়াট ঘণ্টা। দেশের বিদ্যুৎ চাহিদার ঘাটতি মেটাতে আমদানির সিদ্ধান্তও নিয়েছে সরকার, যা এর আগের কোনো সরকারই করেনি। বর্তমানে এক হাজার ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি হচ্ছে। ১২ বছর আগে গ্রিড সাবস্টেশন ক্ষমতা ছিল ১৫ হাজার ৮৭০ এমভিএ। সেটি বেড়ে এখন হয়েছে ৪৮ হাজার ১৫ এমভিএ। সঞ্চালন লাইন আট হাজার সার্কিট কিলোমিটার থেকে বেড়ে হয়েছে ১২ হাজার ৪৯৪ সার্কিট কিলোমিটার। বিতরণ লাইন ছিল দুই লাখ ৬০ হাজার কিলোমিটার। দ্বিগুণের বেশি বেড়ে সেটি হয়েছে পাঁচ লাখ ৯৪ হাজার কিলোমিটার। বিতরণে সিস্টেম লস ছিল ১৪.৩৩ শতাংশ। বর্তমানে কমে হয়েছে ৮.৭৩ শতাংশ। দিনের হিসাবে এখন পর্যন্ত দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়েছে ১২ হাজার ৮৯৩ মেগাওয়াট, যা গেল বছরের ২৯ মে উৎপাদন করা হয়।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা