আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
নিজের সংস্কৃতি ছাড়া ভেতরের শক্তি বিকাশ করা যায় না : পরিকল্পনামন্ত্রী ভুল বোঝাবুঝিতে বিজিবি-বিএসএফের গোলাগুলি, আলোচনা চলছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তরুণ প্রজন্মকে মোবাইল আসক্তি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: আতিকুল ইসলাম যুবলীগ নিয়ে আলোচনা হবে রোববার : কাদের

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৩ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
৫ দিন পর কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়ায় নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু ভারতীয় জেলের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগসহ দুই মামলা গাজীপুরে তরুণীর লাশ উদ্ধার, আটক ২ অভয়নগরে বাসচাপায় ২ পথচারী নিহত টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা নিহত
১৯

ফুটবলে ঐতিহাসিক ম্যাচ

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯  

ছাব্বিশ সদস্যের বেশিরভাগই খেলেন কাতারের ক্লাব আল-সাদে। এই ক্লাবটির কোচ স্পেন ও বার্সেলোনার কিংবদন্তি ফুটবলার জাভি হার্নান্দেজ; টিভিতে যার খেলা দেখে মুগ্ধতা ছড়িয়ে যেত। সেই জাভির শিষ্যরা এখন ঢাকায়। কাতার ফুটবলের সাফল্যগাথার রূপকার ফেলিক্স সানচেজ ছিলেন বার্সেলোনা যুব দলের কোচ। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ইংল্যান্ডের সঙ্গে খেলার অভিজ্ঞতা আছে কাতারের। ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজকও তারা। তারায় তারায় খচিত সেই দলটির বিপক্ষে খেলা মানেই তো স্বপ্নের মতো কিছু। আজ সেই ঐতিহাসিক ম্যাচ।

স্বপ্নের এই ম্যাচে উজাড় করে দেওয়ার প্রত্যয় জামাল ভূঁইয়াদের। এশিয়ার জায়ান্টদের হারানো অসম্ভব; কিন্তু স্বপ্নের জয়গান এখন বাংলাদেশ শিবিরে। ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাই ও ২০২৩ এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে আজ কাতারের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

গত এশিয়ান গেমসে কাতারকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠেছিল বাংলাদেশ। সেটা ছিল অনূর্ধ্ব-২৩ দল। শুধু সে জয়টিই নয়, বয়সভিত্তিক আসরে ২০১৭ সালে এএএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্বে মধ্যপ্রাচ্যের এ দেশটিকে হারানোর সুখস্মৃতি আছে। ফুটবলে কাতারের বিপক্ষে গল্প করার মতো এ দুটি জয়ই আছে।

ফেলিক্স সানচেজের দলের বিপক্ষে অতীতে চারবার মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। ২০০৬ সালে এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বের দুই লেগে হেরেছিল। তবে ১৯৭৯ সালের ১০ জানুয়ারি ঢাকায় এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে এই কাতারকে ১-১ গোলে রুখে দিয়েছিল লাল-সবুজের দলটি। চল্লিশ বছর আগের গল্পটি নতুন করে লেখার স্বপ্ন বাংলাদেশের। গতকাল ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে কোচ জেমি ডেও জয়ের কথা বলেছেন, 'আমরা জানি ম্যাচটি কঠিন। তবে সবার মতো আমরাও চাই ম্যাচটি জিততে। ভুটানের বিপক্ষে দুটি ম্যাচ জিতে আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী। তাদের দুর্দান্ত খেলোয়াড় আছে। তারা এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন।

বাস্তবিক অর্থে বাংলাদেশ তাদের সামনে দুর্বল; কিন্তু ফুটবলে সবসময় চমক থাকে। কাল (আজ) আমাদের অন্য যে কোনো ম্যাচের চেয়ে ভালো খেলতে হবে।' সেই ভালো খেলা কী আক্রমণাত্মক? পাশে বসা অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া যেন কোচের হয়ে উত্তর দিলেন, 'আমাদের মূল পরিকল্পনা অবশ্যই কাউন্টার অ্যাটাক। কারণ কাতারের মতো এশিয়ার সেরা দলের বিপক্ষে আপনি শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে পারবেন না। তাদের বিপক্ষে খুব বেশি সুযোগ পাওয়া যাবে না। যে কয়টা পাব, সেগুলো কাজে লাগাতে হবে। তা না হলে তারা আমাদের ওপর ভীষণ চাপ প্রয়োগ করবে।'

স্বাগতিক বলে কাতারের বিশ্বকাপ খেলা নিশ্চিত। বিশ্বকাপ বাছাই আর এশিয়ান কাপ বাছাই একসঙ্গে চলছে। এশিয়ান কাপের চূড়ান্ত পর্বের জন্যই মূলত লড়াই কাতারের। সেই লড়াইয়ে গ্রুপ 'ই'র প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৬-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল তারা। আর এই আফগানদের কাছেই বাংলাদেশে ১-০ গোলে হেরে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছিল। শক্তির পার্থক্য তো এখানে স্পষ্ট ফুটে ওঠে। সবচেয়ে বড় পার্থক্য হলো র‌্যাংকিংয়ে। বাংলাদেশ যেখানে ১৮৭তম, সেখানে কাতারের অবস্থান ৬২তম।

র‌্যাংকিংয়ের প্রসঙ্গ উঠতেই কাতার কোচ ফেলিক্স কূটনীতিক ভূমিকায়, 'র‌্যাংকিং শুধুই একটা সংখ্যা। মাঠের পারফরম্যান্সই সবসময় পার্থক্য গড়ে দেয়। আমি সেটাই বিশ্বাস করি।' ফেলিক্স যেমন মাঠের পারফরম্যান্সের ওপর চোখ রাখছেন, তেমনি করে বাংলাদেশের চাওয়া বৃষ্টি! ভুটানের বিপক্ষে গত ২৯ সেপ্টেম্বর প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে এই বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বৃষ্টিভেজা মাঠে বাংলাদেশ জিতেছিল ৪-১ গোলে। এমন কন্ডিশনে খেলতে অনভ্যস্ত কাতার। বৃষ্টির প্রসঙ্গ উঠতেই হেসে জেমির উত্তর, 'অবশ্যই বৃষ্টি হলে ভালো; তবে কাতার খুবই শক্তিশালী দল। আমি মনে করি যে কোনো পরিস্থিতিতেই খেলার সামর্থ্য আছে তাদের।'

দুর্দান্ত এই কাতারকে গত মাসে তাদেরই মাঠে গোলশূন্যভাবে রুখে দিয়েছিল ভারত। কাতারের ২৯টি শট থামিয়ে দিয়েছিলেন ভারতের ডিফেন্ডাররা এবং গোলরক্ষক। এ ড্রটা ভারতের ফুটবল ইতিহাসে অন্যতম সেরা সাফল্য। প্রতিবেশী দেশ পেরেছে বলেই আত্মবিশ্বাসী জামাল, 'ভারত যদি কাতারের সঙ্গে ড্র করতে পারে, আমরাও তাদের সঙ্গে ড্র করতে পারি। এমনকি জিততেও পারি।'

জয় কিংবা ড্র; এই দুটির একটি পূরণ করতে হলে রক্ষণভাগের ফুটবলারদের হতে হবে দেয়াল। গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানাকে পুরো ৯০ মিনিট প্রতিরোধ গড়তে হবে। কিন্তু এই রক্ষণেই যে চোটের হানা। কার্ডের কারণে নেই বিশ্বনাথ ঘোষ, ইনজুরিতে ছিটকে গেলেন সুশান্ত ত্রিপুরা। চোট কাটিয়ে ফিরলেও টুটুল হোসেন বাদশাকে নিয়ে কিছুটা শঙ্কা আছে। প্রতিপক্ষ কাতার বলেই হয়তো সবাই নিচে নেমে খেলবেন। আর সুযোগ পেলে কাউন্টার অ্যাটাকে গিয়ে গোল করবেন। যেমনটি জামাল করেছিলেন গত এশিয়ান গেমসে। ফুটবলপ্রেমী থেকে সবার প্রত্যাশা বঙ্গবন্ধুতে আজ যেন ফিরে আসে ইন্দোনেশিয়ার বেকাসির স্মৃতি।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর