আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
কুমিল্লায় জাতীয় পার্টির সভায় দফায়-দফায় সংঘর্ষ, সাবেক এমপিসহ আহত ১০ আমিরাতের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী পর্যাপ্ত টেস্ট না খেলা ব্যর্থতার কারণ : মুমিনুল পেঁয়াজ ছাড়াও রান্না সুস্বাদু হয়, গণভবনে পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী ভারতের বিপক্ষে টেষ্টে বাংলাদেশ আশার চেয়েও খারাপ খেলেছে : পাপন খুলনার বড়বাজারে অতিরিক্ত দামে পেঁয়াজ বিক্রি করায় আড়তদারকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা ইমার্জিং এশিয়া কাপ ক্রিকেটে ভারতকে হারাল বাংলাদেশ সুন্দরবনে অপহৃত দশ শ্রমিক উদ্ধার, আটক এক

রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
৪ দিনের সফরে দুবাইয়ের পথে প্রধানমন্ত্রী উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে : রেলমন্ত্রী খুলনায় তৃতীয় দিনে ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা কর আদায় মিসর থেকে পিয়াজের প্রথম চালান পৌঁছাবে মঙ্গলবার সুন্দরবনে শিশুসহ ১০ শ্রমিক উদ্ধার, আটক ১ নোবিপ্রবিতে গাঁজা সেবনকালে ৩ ছাত্রী আটক
৭৫

পুরোনো ব্রিজটি এখন যেন মরণফাঁদ

ঢাকা অফিস

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০১৯  

কালাই উপজেলার মোসলেমগঞ্জহাট হয়ে শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক সংযোগ সড়কে প্রায় ৪০ বছরের পুরোনো ব্রিজটি এখন যেন মরণফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। ওই ব্রিজটির কিছু অংশ ধসে পড়ায় প্রতিনিয়ত যাত্রীবাহী যানবাহন ও সাধারণ পরিবহন চলাচলের বিঘ্ন ঘটছে। সেই সঙ্গে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে এলাকাবাসী। ওই ব্রিজটি খুব দ্রুত মেরাতম না করা হলে যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

তাছাড়া ব্রিজটি বর্তমানে মেরামত না হওয়ায় মাত্র ১০ কিলোমিটারের রাস্তা ঘুরে আসতে হচ্ছে প্রায় ৪০ কিলোমিটার। এতে পথচারীদের গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা।

কালাই উপজেলার মাত্রাই, উদয়পুর ও আহম্মেদাবাদ ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে কানমোনা-হারাবতি খাল। সেই খালের উপরে এলজিইডির অর্থায়নে নির্মিত উদয়পুর ইউনিয়নের দুর্গাপুরের ব্রিজ। সেই ব্রিজের মাঝখানে কিছু অংশ ধসে পড়ায় বর্তমান যাত্রীবাহী যানবাহন ও সাধারণ পরিবহন চলাচলের চরম বিঘ্ন ঘটছে। ওই ব্রিজ দিয়ে উপজেলার মাত্রাই, উদয়পুর ও আহম্মেদাবাদ ইউনিয়নের প্রায় ৭০টি গ্রামের প্রায় ৬০ হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

ব্রিজের উপর দিয়ে ক্ষেতলাল উপজেলার পাঠানপাড়া থেকে কালাই উপজেলার মোসলেমগঞ্জ হয়ে শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক সংযোগ সড়কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় সেই সড়কের উভয় পাশে আছে তিনটি হিমাগার, ৩০টি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ১৫টি রাইস মিল, তেলের পাম্প এবং ১২টি হাট।

তাছাড়া দীর্ঘদিন ধরে ওই ব্রিজটি মেরামত না করায় বর্তমানে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন কৃষি পণ্যবাহী ট্রাক, এ্যাম্বুলেন্স, সিএনজি, ভ্যান, বাইক, পিকাআপ, ভটভটি, অটোভ্যানসহ অসংখ্য যানবাহন এবং এলাকার আশেপাশে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীসহ হাজার হাজার মানুষেরা চলাচল করেন। তাই এলাকাবাসী ব্রিজটি নতুন করে নির্মাণের দাবি করেছেন।

উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম বলেন, উপজেলার দুর্গাপুরের ব্রিজটি প্রায় ৪০ বছরের পুরোনো। ধসে যাওয়ার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে আমি নিজেই সেখানে গিয়ে ওই ব্রিজের দুই ধারে জনস্বার্থে জন্য সর্তকতামূলক সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছি। সেই সঙ্গে দুর্গাপুর ব্রিজটির খুব দ্রুত মেরামতের জন্য আমাদের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ওই ব্রিজ নতুন করে তৈরীর করার জন্য বরাদ এলেই তা দ্রুত মেরামতের করা হবে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর