আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
বান্দরবানের ঘুমধুমে চোরাকারবারীদের গুলিতে দুই বিজিবি সদস্য আহত বেনাপোলে কাস্টমস হাউজের লকার ভেঙ্গে সাড়ে ২৬ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনায় আটক ৫, পাঁচ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত রোহিঙ্গা গণহত্যায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার মামলা গুরুতর অসুস্থ লতা মুঙ্গেশকর, মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি বিদ্যুৎ না থাকায় উপকূলীয় এলাকায় ২ হাজার মোবাইল টাওয়ার বন্ধ, সেবা বঞ্চিত অর্ধকোটি গ্রাহক বুলবুলের আঘাতে সুন্দরবনের ক্ষয়ক্ষতি নিরূপনে ৬৩ টি টিম কাজ শুরু করেছে রুপসায় সড়ক দূর্ঘটনায় এক পুলিশ সদস্য নিহত ঘূর্ণিঘড়ে ৮ জেলায় এ পর্যন্ত নিহত ১৪

মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা: আজ মঙ্গলবার দাখিল হতে পারে চার্জশিট বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের সঙ্গে ওবায়দুল কাদেরের বৈঠক রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট তৈরি চক্রের অন্যতম হোতা আতিকুর রহমান রাজধানী থেকে আটক সুন্দরবনে অনুপ্রবেশের অভিযোগে চার ট্রলারসহ ৪৯ দর্শনার্থী আটক মানিকগঞ্জে বিয়ের ১০ দিনের মাথায় গলায় ফাঁস দিলেন নববধূ ২০২০ সালের হজ চুক্তি ১ ডিসেম্বর খুলনার ডুমুরিয়ায় অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান ৮ ডিসেম্বর
৩২

নড়াইলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে রোপা আমন চাষ

নড়াইল প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৯  

চলতি মওসুমে নড়াইল জেলার ৩উপজেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১হাজার ৭শ’৩০ হেক্টর বেশি জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে।কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর তিন উপজেলায় ৩৭ হাজার ১০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করলেও ধান চাষ হয়েছে ৩৮ হাজার ৭শ’ ৪০ হেক্টর জমিতে। আবাদকৃত জমিতে ১লাখ ৭ হাজার ৪শ’৩২ মেট্রিক টন চাল উৎপাদন হবে বলে কৃষি কর্মকর্তারা আশাপোষণ করছেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি মওসুমে নড়াইল সদর উপজেলায় ১৮ হাজার ১শ’৭৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল।এ উপজেলায় চাষ হয়েছে ১৮ হাজার ৯শ’৫০ হেক্টর জমিতে।লোহাগড়া উপজেলায় ৮ হাজার ৭শ’ ১৫হেক্টর জমিতে রোপা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল।এ উপজেলায় চাষ হয়েছে ১০ হাজার ২শ’ হেক্টর জমিতে। কালিয়া উপজেলায় ১০হাজার ১শ’২০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। এ উপজেলায় চাষ হয়েছে ৯ হাজার ৫শ’৯০ হেক্টর জমিতে ।

লোহাগড়া উপজেলার আমাদা গ্রামের কৃষক তালুকদার মনিরুজ্জামান কালু জানান, রোপণকৃত জমিতে বর্তমান সময়ে ধানের শীষ বের হচ্ছে। আগাম রোণনকৃত জমির ধানের শীষ সোনালী রুপ ধারন করতে শুরু করেছে।আমন ধানের চাল সুস্বাদু ও মিষ্টি।এ কারণে বাজারে এ চালের চাহিদা সব সময় বেশি থাকে।তাই প্রতি বছর আগ্রহ সহকারে তারা এ ধান চাষাবাদ করে থাকেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম বলেন, এ জেলায় ব্রি-২৮,১১,৩৪,৫৬ ও ৫৮ জাতের রোপা আমন ধানের চাষ বেশি হয়ে থাকে।রোপা আমন ধানের চাষ সফল করতে জেলার বিভিন্ন এলাকার কৃষকদের নিয়মিতভাবে মনিটরিং করা হয়ে থাকে।আগামি নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে এ ধান কাটার কাজ শুরু হবে বলে তিনি জানান।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নড়াইলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ চিন্ময় রায় বলেন, কৃষি কর্মকর্তাদের নিয়মিত তদারকি এবং কৃষকদের আগ্রহে প্রতি বছর এ জেলায় রোপা আমনের চাষ বাড়ছে।তাছাড়া এ জেলার মাটি ও আবহাওয়া আমন ধান চাষের জন্য সবচেয়ে উপযোগী। এক্ষেত্রে নড়াইলকে আমন ধান চাষের আদর্শ জেলা বলা যায় বলে তিনি জানান।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর