আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
রাজধানীতে আনসারুল্লাহ’র ২ সদস্য আটক এসএ গেমস : ১০ উইকেটে জিতলো বাংলাদেশ ভারতে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা, অভিযুক্ত ৪ জনই পুলিশের গুলিতে নিহত টাঙ্গাইলে মাইক্রোবাস-কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে একই পরিবারের ৩ জন নিহত

শুক্রবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
দৃশ্যমান মেট্রোরেলের ৮ কি.মি. পথ, এ মাসেই বসছে স্লিপার জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকির তালিকায় বাংলাদেশ ৭ম স্থানে চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান আর নেই
৯৭

নিজের দুর্বলতার কথা কাউকে বলতে হয় না : বুবলী

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০১৯  

আর সবার মতো জনপ্রিয় তারকারও আছে ব্যক্তিগত জীবন। যার অনেক কিছুই পাঠকের অজানা। ভক্তরা তারকার সে অজানা বিষয় নিয়ে জানতে আগ্রহী। ভক্তদের অজানা অনেক বিষয় নিয়ে সমকালের সঙ্গে কথা বলেছেন চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী। জানিয়েছেন তার হাঁড়ির খবর।

আপনার সবচেয়ে দুর্বল দিক কোনটি- যা দিয়ে আপনাকে বোকা বানানো...

গুরু বলেছেন নিজের দুর্বলতার কথা কাউকে বলতে হয় না। এটা আমি অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলি। ফলে আমাকে বোকা বানানো সহজ নয়। বার্গার খেতে আমি খুবই পছন্দ করি। কেউ যদি বার্গার অফার করে, তখন আর কিছুই মাথায় থাকে না। 

যদি মিডিয়ার কাজ বন্ধ হয়ে যায়, তখন কী করবেন?

বাসায় অভিনয় করব। আসলে অভিনয় করে অভ্যাস হয়ে গেছে। অভিনয় ছাড়া তো থাকতে পারব না। আর সবার মতো অভিনয় শিল্পীদের আছে ব্যক্তিগত জীবন। যার অনেক কিছুই থাকে পাঠকের অজানা। মিডিয়ায় কাজ না করলে অনেক পথই খোলা আছে। আইনজীবী হলেও মন্দ হয় না। কারণ এ বিষয়ে পড়ালেখা করছি।

দেশের কোনো এক জায়গায় গিয়ে দেখলেন, কেউ চিনতে পারছে না...

খুব স্বাভাবিক থাকব। এ রকম পরিস্থিতি প্রায়ই হয়েছে। রাস্তায় বের হলে অনেকেই মেকআপ ছাড়া আমাকে চিনতে পারে না। ট্রাফিক পুলিশ অনেকবার গাড়ি থামানোর পরও আমাকে চিনতে পারেনি।

শুটিংয়ে গিয়ে দেখলেন আপনার কস্টিউম টাইট হয়ে যাচ্ছে। কী করবেন?

এ রকম পরিস্থিতিতে অনেকবারই পড়েছি। যদি এ রকম হয়, প্রথমে ওই রকম কস্টিউমের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব। কিন্তু তাতেও যদি কাজ না হয়, তাহলে নির্মাতাকে বলব, আরও কিছুদিন সময় নিয়ে ওজন কমিয়ে আবার শুটিং শুরু করব।

ভূত দেখলে কী করবেন?

ভূত তাড়ানোর যে মন্ত্রগুলো রয়েছে, সেগুলো মনে মনে আউড়ে ভূতকেই ভয় দেখাব।

জন্মদিনে কাকে দাওয়াত দেবেন না?

আমার ব্যক্তিগত ম্যানেজারকে দাওয়াত দেব না। যাতে করে ওই দিন কোনো কাজের কথা সে বলতে না পারে।

শ্রেষ্ঠ পাওয়া উপহার...

আমার নাম লেখা হিরার আংটিটা।

সবচেয়ে আনন্দের দিন...

সময়ের সঙ্গে আনন্দের রঙ বদলায়। শৈশব-কৈশোরের আনন্দের রঙ এক রকম ছিল। এখন অন্যরকম। শোবিজে প্রবেশের পর আমার প্রথম ছবির মুক্তিই ছিল সবচেয়ে আনন্দের। ওই দিন নিজেকে আবারও নতুন করে আবিস্কার করেছিলাম। 

শৈশবে ফিরে যাওয়ার সুযোগ পেলে কী করবেন?

স্কুলজীবনকে অনেক মিস করি। দেরি না করে ক্লাসে গিয়ে বসব। যদি ছোট্টবেলার সে স্কুলজীবনটা ফিরে পাওয়া যায়।

আপনার কোনো একটি গোপন কথা বলুন, যা কেউ জানে না।

গোপন কথা গোপনই থাক। কারণ সেটা গোপন কথা। একান্তই ব্যক্তিগত। ব্যক্তিগত কথা ফাঁস করে অনেকেই ঝামেলায় পড়েছেন। তাই ওই পথে পা বাড়াতে চাই না। 

রাগ উঠলে কী করেন? 

যখন কেউ বেশি বোঝে। বয়স অনুযায়ী বেশি বুঝলে তাকে মারতে ইচ্ছা করে।

একদিনের জন্য অদৃশ্য হয়ে কী দুষ্টুমি করবেন?

অদৃশ্য দুষ্টুমি করার খুব একটা জায়গা হয় না। আমার যেটা করতে ইচ্ছা করে তা আমি দৃশ্যমান হয়ে করি। যদি অদৃশ্য হয়ে দুষ্টুমি করতে বলা হয়, তাহলে আমি পৃথিবীর এমন এমন কিছু নিষিদ্ধ জোন আছে, যেগুলোয় যাওয়া বারণ, সেগুলোয় যেতে চাই। এ ছাড়া কিছু কিছু ভয়ঙ্কর জায়গা আছে। সেখানে গিয়ে দেখতে চাই, মানুষ কেন এসব জায়গায় এলে এতটা ভয় পায়।

শপিং করতে গেলে কি বোরখা পরেন?

না বোরখা পরে যাব কেন? আমি আমার মতো করে যাই। তবে এতে অনেক সময় আমার ভক্তরা ছবি তোলার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ে। 

নিজের পোশাক নিজে কেনেন..

নিজের পোশাক সাধারণত আমি নিজেই কিনি। কারণ এতে পছন্দ অনুযায়ী কেনা যায়। দেখা গেছে কোন দোকান থেকে আমি প্রয়োজনিও কিছু কিনতে গেছি। আর সে সময় দোকানি আমাকে চিনে ফেলেছেন। এতে আমার দুটো জিনিস হয়। এক, পারলে আমার কাছে থেকে অনেক পণ্যের দাম বেশি নেয়। আবার অনেকেই দাম কম নেয়। এটা অবশ্য বিদেশে গেলে হয় না। কারণ সেখানে কয়জন চেনেন!

কোন ব্যান্ডের পারফিউম আপনি ব্যবহার করেন?

আমি এককভাবে কোন ব্যান্ড ব্যবহার করি না। বেশ কয়েকটি ব্যান্ডের পারফিউম ব্যবহার করি। 

আপনি কি কখনও তরকারির বাজারে গিয়েছেন?

না। সেভাবে আমাকে কখনো বাজার করতে হয় নি। তবে শুটিংএর কারণে আমি বাজারে গিয়েছি। 

ভক্তদের কোন বিষয়টি আপনার কাছে খারাপ লাগে?

দেখা গেছে আমি একটি নাটকের কাজের জন্য একটি এলাকাতে দাঁড়িয়ে আছি, সেখানে ভক্তরা আমাকে না বলে তাদের সেলফোনে আমার ছবি তুলছে। এটা খুবই খারাপ লাগে। অনুমতি নিয়ে তুললেই কিন্তু হয়।

আপনি অপরিচিত ফোন রিসিভ করেন না। কখনও মনে হয় না যে দেখি না কে?

সবসময় যে অপরিচিত নাম্বার রিসিভ করি না সেটা কিন্তু নয়। মাঝে মাঝে কিন্তু করি। আর বেশিরভাগ সময় ফোন ধরা হয় না এই ভেবে যে একবার ফোন ধরলে ভক্তরা আর ফোন শেষ করতে চায় না। তখন কেটে দিলে বলে বুবলী খুব অহঙ্কারি এটা সেটা কত কী। 

বিয়ের সানাই কবে বাজার সম্ভাবনা আছে? 

আমি আগেও বলেছি, এখনও বলছি, পুরোটাই বাবা-মায়ের ওপর ছেড়ে দিয়েছি। বাবা-মা যাকে আমার যোগ্য মনে করবেন তাকে আমি বিয়ে করব। তবে অবশ্যই আমারও তাকে পছন্দ হতে হবে। কারণ সংসারটা তো আমি করব। 

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর