• বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬

  • || ০৩ রজব ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৮৬ রানে হারলো বংলাদেশের নারীরা খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন আবারও খারিজ কুষ্টিয়ায় ট্রাকচাপায় বৃদ্ধা নিহত আগামী ২ থেকে ১৫ই মার্চ পর্যন্ত হজ্বযাত্রীদের নিবন্ধন
৭০৫

দোষ স্বীকার এবং ক্ষমা চাইবেন খালেদা জিয়া

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২০  

আজ বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাৎ করেছে। অবশেষে বেগম খালেদা জিয়া প্যারোলে মুক্তি নিতে রাজি হয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের সূত্রে জানা গেছে যে, এখন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে তারা প্যারোলের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করবেন। এ ব্যাপারে আইনজীবীদের ব্যাপারে কথা বলবেন।

সরকারী দল এবং বিএনপির আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্যারোলের জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে ৩টি বিষয় স্বীকারোক্তি করতে হবে।

প্রথমত; বেগম খালেদা জিয়াকে বলতে হবে যে তিনি অপরাধ করেছেন। বেগম খালেদা জিয়া ইতিমধ্যে দুটি মামলায় দন্ডিত হয়েছেন। একটি হলো, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা। যেখানে তিনি নিম্ন আদালতে ৫ বছরের জন্য দণ্ডিত হয়েছিলেন। পরে উচ্চতার আদালত সেই মামলার সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেছে। সেই মামলাটি এখন আদালতের আপিল বিভাগে বিচারাধীন রয়েছে। দ্বিতীয়, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ৭ বছরের দণ্ড দেওয়া হয়েছে বেগম খালেদা জিয়াকে।

প্যারোলের অন্যতম শর্তই হলো, এই মামলায় তিনি যে দণ্ড পেয়েছেন, যেই অপরাধে তিনি দণ্ডিত হয়েছেন, সেই অপরাধ স্বীকার করেই তাকে প্যারোলের আবেদন করতে হবে। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হবে যে, বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতিবাজ।

দ্বিতীয় শর্ত; বেগম খালেদা জিয়াকে এই দণ্ডের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে এবং অনুতপ্ত হতে হবে। কারণ প্যারোল আবেদনের অন্যতম শর্ত হলো ক্ষমা প্রার্থনা করা। বেগম খালেদা জিয়া যে দুটি মামলায় দণ্ডিত হয়েছেন সে দুটি মামলায় দণ্ডের জন্য তিনি সরকারের কাছে ক্ষমা প্রার্থণা করবেন এবং এরকম অপকর্ম করার জন্য তিনি অনুতপ্ত বলেও তার আবেদনে উল্লেখ করবেন। সেটিই প্যারোল আবেদনের প্রক্রিয়া।

তৃতীয় শর্ত; বেগম খালেদা জিয়া রাজনীতি করবেন না। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ এবং চিকিৎসার কারণেই তিনি প্যারোল চাইছেন এই বক্তব্য তাকে দিতে হবে। তিনি প্যারোলের মুক্তিকালীন সময়ে কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়াবেন না। অর্থাৎ এর মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবনের ইতি ঘটবে।

বিএনপির একাধিক সূত্র বলছে, প্যারোল নিয়ে খালেদা জিয়ার পরিবারের সঙ্গে বিএনপির নেতৃবৃন্দর তীব্র মতবিরোধ রয়েছে। কিন্তু এই মতবিরোধ থাকা সত্বেও বেগম খালেদা জিয়া এখন নিজেই চাইছেন যে প্যারোল নিয়ে চিকিৎসা করবেন। আর এ কারণে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দর বাইরে থেকে বেগম খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন করা হবে বলে বিএনপি ও বেগম জিয়ার পরিবারের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। তবে বেগম খালেদা জিয়া কবে প্যারোল আবেদন করবেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের একজন সদস্য বলেছেন, আগামী দুই একদিনের মধ্যে আইনজীবিদের মাধ্যমে তারা এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন এবং সম্পন্ন করে তারা এ ব্যাপারে আবেদন করবেন। তবে বেগম খালেদা জিয়াকে যারা চেনেন তারা মনে করেন, তিনি ক্ষণে ক্ষণে সিদ্ধান্ত পাল্টান এবং শেষ পর্যন্ত তিনি এমন অসম্মানজনক পথে যাবেন কিনা তা নিয়ে বিএনপির অনেকের মনেই প্রশ্ন রয়েছে।   

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর