আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
বান্দরবানের ঘুমধুমে চোরাকারবারীদের গুলিতে দুই বিজিবি সদস্য আহত বেনাপোলে কাস্টমস হাউজের লকার ভেঙ্গে সাড়ে ২৬ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনায় আটক ৫, পাঁচ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত রোহিঙ্গা গণহত্যায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার মামলা গুরুতর অসুস্থ লতা মুঙ্গেশকর, মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি বিদ্যুৎ না থাকায় উপকূলীয় এলাকায় ২ হাজার মোবাইল টাওয়ার বন্ধ, সেবা বঞ্চিত অর্ধকোটি গ্রাহক বুলবুলের আঘাতে সুন্দরবনের ক্ষয়ক্ষতি নিরূপনে ৬৩ টি টিম কাজ শুরু করেছে রুপসায় সড়ক দূর্ঘটনায় এক পুলিশ সদস্য নিহত ঘূর্ণিঘড়ে ৮ জেলায় এ পর্যন্ত নিহত ১৪

মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা: আজ মঙ্গলবার দাখিল হতে পারে চার্জশিট বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের সঙ্গে ওবায়দুল কাদেরের বৈঠক রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট তৈরি চক্রের অন্যতম হোতা আতিকুর রহমান রাজধানী থেকে আটক সুন্দরবনে অনুপ্রবেশের অভিযোগে চার ট্রলারসহ ৪৯ দর্শনার্থী আটক মানিকগঞ্জে বিয়ের ১০ দিনের মাথায় গলায় ফাঁস দিলেন নববধূ ২০২০ সালের হজ চুক্তি ১ ডিসেম্বর খুলনার ডুমুরিয়ায় অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান ৮ ডিসেম্বর
১৯

গরম ও আর্দ্রতায় সুস্থ থাকতে করণীয়

স্বাস্থ্য ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০১৯  

আবহাওয়া পরিবর্তনের এ সময়টাতে গরম ও আর্দ্রতা বেড়ে যায়। এ কারণে এ সময় স্বাস্থ্য সমস্যা ও রোগব্যাধি বেড়ে যায়। ঘামাচি কিংবা পানিস্বল্পতা গরমের অন্যতম সমস্যা। কেউ কেউ হিটস্ট্রোকের মতো মারাত্মক সমস্যায় আক্রান্ত হতে পারে। এর সঙ্গে হতে পারে অবসাদ, অ্যালার্জি, সূর্যরশ্মিতে চামড়া পুড়ে যাওয়া, হজমের অভাবে বমি বা ডায়রিয়াজনিত রোগ ইত্যাদি। ঠান্ডা ও গরমের এসব সমস্যা থেকে বাঁচার জন্য যা করতে হবে।

►যথাসম্ভব ঘরের ভেতরে বা ছায়াযুক্ত স্থানে থাকার চেষ্টা করুন।

►বাইরে বের হলে সরাসরি রোদ এড়িয়ে চলুন। প্রয়োজনে টুপি বা ছাতা ব্যবহার করতে হবে। পরনের কাপড় হতে হবে হালকা, ঢিলেঢালা ও সুতির। শরীর যতটা সম্ভব ঢেকে রাখতে হবে।

►শরীরের উন্মুক্ত স্থানে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন, যা রোদে পোড়া থেকে ত্বককে সুরক্ষা দেবে।

►প্রচুর পানি পান করতে হবে। ঘামের সঙ্গে পানি ও লবণ দুই-ই বের হয়ে যায়, এ জন্য লবণযুক্ত পানীয়, যেমনÑ খাওয়ার স্যালাইন, ফলের রস ইত্যাদি পান করতে হবে। বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। চা ও কফি যথাসম্ভব কম পান করা উচিত।

►নিয়মিত গোসল করতে হবে এবং শরীর ঘাম ও ময়লামুক্ত রাখতে হবে। শ্রমসাধ্য কাজ যথাসম্ভব কম করতে হবে। কাজের মাঝে কিছুক্ষণ পরপর বিশ্রাম নিতে হবে। প্রচুর পানি ও স্যালাইন পান করতে হবে।

►গুরুপাক খাবার এড়িয়ে চলুন। সাধারণ খাবার, যেমন- ভাত, ডাল, সবজি, মাছ ইত্যাদি খাওয়া ভালো। খাবার যেন টাটকা হয়, সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। নানারকম ফল, যেমন- আম, তরমুজ ইত্যাদি এবং লেবুর শরবত শরীরের প্রয়োজনীয় পানি ও লবণের ঘাটতি মেটাবে।

►শিশু বা বয়স্ক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা নিতে হবে। শিশু স্কুলে গেলে কিংবা মাঠে খেলাধুলা করতে গেলে যেখানে-সেখানে পানি বা শরবত যেন না খায়, বিশুদ্ধ পানি ও পানীয় যেন গ্রহণ করে তা নিশ্চিত করতে হবে। বয়স্ক ব্যক্তিরা যেন অনেকক্ষণ রোদে চলাফেরা বা কাজকর্ম না করেন, সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে।

►গরমে ও ঠান্ডায় স্বাস্থ্যঝুঁকি সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি জরুরি। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও শিশুদের বেলায়। এ বিষয়ে সচেতন থেকে পদক্ষেপ নিলে দহনজনিত স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব।

লেখক : চেয়ারম্যান, মেডিসিন বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা