আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
শনিবার সমাবেশের ঘোষণা জাবি আন্দোলনকারীদের খুলনায় ঘের ব্যবসায়ীকে হত্যার ঘটনায় ৩ জন আটক জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব ঢাকায় আসছেন আগামীকাল মাদারীপুর আদালতে জামিন পেলেন শামসুজ্জামান দুদু আফগানিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ যশোরে নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, থানায় মামলা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে বিএনপি : কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত

বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
খুলনায় প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবায়নে বিভিন্ন স্কুলের মানববন্ধন ডিআইজি পার্থ’র মামলার প্রতিবেদন ২৮ জানুয়ারি শিক্ষা অধিদপ্তরের ঠিকাদারের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা খুলনায় নৌ অঞ্চলে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপিত নওগাঁয় ইজিবাইক চালক হত্যা মামলার ৫ আসামি গ্রেফতার খুলনায় দুর্নীতি বিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত সাভারে ২০ লাখ টাকার নকল প্রসাধনী জব্দ ডিসেম্বরে আসছে ড্রিমলাইনার সোনার তরী ও অচিন পাখি খুলনায় কর মেলায় ৫৭ কোটি ৬৭ লাখ টাকা আদায়
৩৮

খুলনায় চোখ হারালো, সাজাও পেলো শাহজালাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৪ নভেম্বর ২০১৯  

খুলনায় পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় চোখ হারানো যুবক মো. শাহজালালকে ছিনতাই মামলায় দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার (০৪ নভেম্বর) বিকেলে খুলনার মহানগর হাকিমের বিচার আদালত-১ (দ্রুত বিচার) এর বিচারক মো. আমিরুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ের পর শাহজালালকে কারাগারে পাঠানো হয়।

শাহজালালের বাবা জাকির হোসেন বলেন, আমার ছেলের চোখ নিলো, ছেলেকে অন্ধ বানালো এবার তাকে জেলেও ঢোকালো। গরিবের ওপর এমন অত্যাচার, আল্লাহ সহ্য করবে না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, দেড় লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে ধরে নিয়ে গিয়ে খুলনার খালিশপুর থানা পুলিশ তার ছেলের চোখ তুলে ফেলেছে।

তবে পুলিশের দাবি, ছিনতাইকালে জনতার পিটুনিতে চোখ হারিয়েছেন শাহজালাল।

২০১৭ সালের ১৮ জুলাই মহানগরীর খালিশপুর এলাকা থেকে ছিনতাইয়ের অভিযোগে শাহজালালকে আটক করে খালিশপুর থানা পুলিশ। পরদিন ভোরে চোখ তুলে ফেলা অবস্থায় তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছিনতাইয়ের ঘটনায় সোমা বিশ্বাস নামের এক নারী শাহজালালকে আসামি করে খালিশপুর থানায় ছিনতাই মামলা দায়ের করেন।

এদিকে শুরু থেকেই পুলিশের বিরুদ্ধে চোখ তুলে ফেলার অভিযোগ করে শাহজালালের পরিবার। এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ৭ সেপ্টেম্বর খালিশপুর থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম খানসহ ১৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন শাহজালালের মা রেনু বেগম। মামলাটি নিম্ন আদালত খারিজ করে দিলে তারা উচ্চ আদালতে আপিল করেন। এর মধ্যে পুলিশ কর্মকর্তারা মীমাংসার প্রস্তাব দেওয়াসহ বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অভিযোগ করে শাহজালালের পরিবার।

শাহজালালের আইনজীবী মো. নুরুল হক বলেন, ছিনতাই মামলার একমাত্র আসামি ছিলেন শাহজালাল। তার কাছ থেকে কিছু উদ্ধার করা যায়নি। তারপরও তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। এই রায় প্রভাবিত করা হয়েছে। নিম্ন আদালতে শাহজালালের সাজা দেওয়া গেলে পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাটি উচ্চ আদালতে টিকবে না। এসব কারণে এমনটা করা হয়েছে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর