• সোমবার   ০৬ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

আজকের খুলনা
৫৩

কয়রায় মানুষের পাশে ইউএনও শিমুল কুমার সাহা

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ১৫ মে ২০২০  

খুলনার কয়রায় করোনা পরিস্থিতির কারণে টানা কয়েক দিন স্থবির হয়ে পড়েছে সব ধরণের কার্যক্রম। ফলে বিপাকে পড়েছেন ব্যবসায়ীসহ নানা শ্রেনী পেশার মানুষ। কর্মহীন হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। পুনরায় লক ডাউনে বন্ধ রয়েছে যানবাহন চলাচল ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান।

যার কারণে চরম দুর্ভোগে রয়েছেন এলাকার নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া, দিন মজুর, শ্রমজীবী, দুস্থ ও অসহায় মানুষ। দুর্ভোগে থাকা এসব মানুষের সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন উপজেলা প্রশাসন। দুস্থ ও অসহায় মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায়, কয়রা-পাইকগাছার এমপি আলহজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু ও খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সার্বিক তত্ববধানে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইউএনও শিমুল কুমার সাহা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধসহ অসহায় মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে বিরামহীনভাবে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকে অধ্যাবধি করোনা মোকাবেলায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।

তিনি নিজ পরিবারকে উপেক্ষা করে নিজের নিরাপত্তার কথা চিন্তা না করে দেশ এবং দেশের মানুষকে করোনা থেকে মুক্ত রাখতে নানা প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। কখনো তিনি সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে লিফলেট নিয়ে ছুটে চলেছেন এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। কখনো আবার মানুষের মাঝে বিতরণ করছেন মাস্কসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পরিচালনা করছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত ও সেনা অভিযান। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের মনিটরিং করাসহ সার্বক্ষনিক সমন্বয় করে চলেছেন স্বাস্থ্য বিভাগ, থানা পুলিশ ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করার পাশাপাশি টানা কয়েকদিন সব ধরণের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ায় দুর্ভোগে থাকা নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী, দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের দুর্ভোগ লাঘবে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

কখনো রাতের আধারে, কখনো দিনের আলোতে, কখনো পড়ন্ত বেলায়, কখনো গোধুলী সন্ধ্যায় খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলেছেন দুস্থ ও অসহায় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে। ইতোমধ্যে তিনি আশ্রয় কেন্দের বাসিন্দা, গণপরিবহন শ্রমিক, দিনমজুর, ইজিবাইক চালক ও সেলুন শ্রমীক, আদিবাসি সদস্য সহ নানা শ্রমজীবী মানুষের মাঝে বিতরণ করেছেন খাদ্য সামগ্রী। তার সাথে অবিরামভাবে ছুটে চলছেন উপজেলা সহকারি কমিশনার(ভুমি) মোঃ নুর-ই আলম ছিদ্দিকী ও কয়রা থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ মোঃ রবিউল হোসেন।

এ ছাড়া প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জাফর রানা সহযোগিতায় রয়েছেন। ইতোমধ্যে ভর দুপুরেও অনেক পথ পাড়ি দিয়ে খাদ্য সামগ্রী ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী নিয়ে ছুটে যান উপজেলার সুন্দরবন সংলগ্ন উত্তর ও দক্ষিন বেদকাশি ইউনিয়নে।

এ সকল এলাকার অসহায় পরিবারের মাঝে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত চাল, ডাল, আলু, তেল, লবণ ও পেঁয়াজসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। বিতরণ কালে তিনি কয়েকজন বৃদ্ধা নারী পুরুষের পাশে বসে সহায়তা প্রদান করার পাশাপাশি তাদের সার্বিক খোঁজ খবর নিয়ে আবারও মানবিকতায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। এসব বিষয় নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিমুল কুমার সাহার সাথে কথা হলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, সকলের সহযোগিতায় করোনা মোকাবেলায় কয়রার মানুষের সেবা করে যাচ্ছি। তিনি সকল শ্রেনী পেশার মানুষকে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর দাবি জানান।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
খুলনা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর