আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
কিশোরগঞ্জে সিএনজি-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২ করাচি থেকে আসলো পেঁয়াজের প্রথম চালান করাচি থেকে ৮২ টন পিঁয়াজ নিয়ে ঢাকায় পৌছেছে কার্গো বিমান বগুড়ায় যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা রাজধানী সুপার মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ২৯টি ইউনিট ময়মনসিংহে ৭০০০ কেজি লবণ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৪ রাজধানীতে ধর্মঘট প্রত্যাহার, যান চলাচল স্বাভাবিক প্রস্তুত এনসিটিবি, চলতি মাসেই শতভাগ নতুন বই

বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
খুলনা রেঞ্জে গত মাসে কোটি টাকার মাদক জব্দ খুলনার সহকারী কর কমিশনারের জামিন নামঞ্জুর নোয়াখালীতে আ’লীগের সম্মেলনে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০৪ কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনা : ৫ সুপারিশ তদন্ত কমিটির রিফাত হত্যা মামলায় চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর ভারতে ব্যাংক জালিয়াতি, বাংলাদেশিসহ আটক ৪ আগামী তিনদিনে তাপমাত্রা আরো কমবে দেশব্যাপী চলছে ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিকদের কর্মবিরতি সাতক্ষীরায় সড়ক দুর্ঘটনায় ভ্যান চালক নিহত
১৪

ক্লিনিকের বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে কুমার নদী, দেখার কেউ নেই

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০১৯  

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা শহরের বিভিন্ন ক্লিনিক, বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনোস্টিক সেন্টারের বর্জ্য ফেলার কারণে দূষিত হচ্ছে কুমার নদী। অপারেশনসহ অন্যান্য চিকিৎসার পর মানুষের দেহ থেকে অপসারিত সংক্রমিত অংশ নদীতে ফেলার পর প্রথমে মাছের পেটে ও পরে মাছ থেকে মানুষের দেহে সংক্রমন ছড়াচ্ছে। যার ফলে ভয়াবহ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে নদী পারের মানুষসহ উপজেলাবাসী। তবে ক্লিনিক ও বেসরকারি হাসপাতালের পক্ষ থেকে বলা হয়- পৌরসভা থেকে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় তাদের এ অবস্থা। তারা পৌরসভার সমস্ত শর্ত পূরণ করেই ব্যবসা করছেন। কিন্তু কোনো সুযোগ পাচ্ছেন না। তাই বাধ্য হয়ে নদীর পানিতে বর্জ্য ফেলছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শৈলকুপা উপজেলা শহরে একটি সরকারি ও ৫টি প্রাইভেট হাসপাতাল ও বেশকিছু ডায়াগনোস্টিক সেন্টার রয়েছে। রোগীর জন্য ব্যবহৃত জিনিসপত্র প্রতিনিয়ত নদীর মধ্যে ফেলা হচ্ছে। যার কারণে এসব বর্জ্য নদীর পানির সাথে বিভিন্নস্থানে মিশে ভেসে যাচ্ছে। 
নদীর আশে পাশে বসবাসরতরা নদীতে গোসল বা অন্যান্য কাজ করার সময় এখন ঝুঁকির মধ্যে থাকতে হচ্ছে। গোসল করতে গেলে দেখা যাচ্ছে সামনে দিয়ে ক্লিনিক হাসপাতালের কোনো না কোনো বর্জ্য ভেসে যাচ্ছে। এছাড়া অনেকের পায়ে সুচ বিদ্ধ হচ্ছে। স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছেন নদী পারের মানুষ। বর্জ্য নদীতে ফেলার ব্যাপারে বিভিন্ন সময় অভিযোগ করা হলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি প্রশাসন।

এ ব্যাপারে শৈলাকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাশেদ আল মামুন জানান- অন্যান্য বর্জ্য থেকে ক্লিনিকের বর্জ খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। নির্দিষ্ট স্থান ছাড়া এ বর্জ্য ফেলার কোনো নিয়ম নেই। 

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, ক্লিনিক ও হাসপাতালের বর্জ্য যদি নদীতে ফেলা হয় তাহলে ঠিক হচ্ছে না। এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর