• বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৬ ১৪২৭

  • || ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আজকের খুলনা
৫৭

কিডনিতে পাথর হওয়াসহ ছয় মারাত্মক রোগের কারণ হলুদ

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২৩ জুলাই ২০২০  

প্রতিদিনের রান্নায় হলুদ ছাড়া চিন্তাও করতে পারেন না নিশ্চয়ই? হলুদের রয়েছে অনেক অনেক গুণ। আর এর স্বাস্থ্যগুণের কারণেই যুগ যুগ ধরে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসাশাস্ত্রে হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে। তাছাড়া বর্তমানেও বিভিন্ন রোগের পথ্য হিসেবে চিকিৎসকেরা হলুদ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

করোনা ঠেকাতেও অনেকেই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হলুদ খেয়ে থাকেন। তবে জানেন কি, হলুদ স্বাস্থ্যের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিরও কারণ হতে পারে। হ্যাঁ, অতিরিক্ত হলুদ খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে মোটেও সুফল বয়ে আনে না। চলুন জেনে নেয়া যাক স্বাস্থ্যের পক্ষে হলুদের ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে-

> হলুদ অনেক সময় ক্যালসিয়াম অক্সালেটের হজমে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এই হজম না হওয়া ক্যালসিয়াম অক্সালেট জমে পরবর্তিকালে কিডনিতে পাথর সৃষ্টি করে।

> দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত পরিমাণে হলুদ খেলে ডায়রিয়া, হজমের সমস্যা, গা বমি বমি ভাবের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

> সম্প্রতি একটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, হলুদ থেকে অ্যালার্জি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এর ফলে ত্বকে র‌্যাশ দেখা দিতে পারে।

> সম্প্রতি বেশ কয়েকটি গবেষণায় জানা গেছে, অতিরিক্ত মাত্রায় হলুদ খেলে তা নানা ধরনের ওষুধের কাজে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। বিজ্ঞানীরা হলুদে থাকা কারকিউমিনকে অস্থায়ী, প্রতিক্রিয়াশীল যৌগ বলে ব্যাখ্যা করেছেন। তাই অ্যাসপিরিন, ওয়ারফারিন এবং কিছু স্টেরয়েডের কার্যক্ষমতা কমিয়ে দিতে পারে হলুদ।

> হলুদ রক্ত জমাট বাঁধতে বাধা দেয়। তাই যাদের রক্তে সমস্যা রয়েছে (সহজে রক্ত জমাট বাঁধতে চায় না), তাদের হলুদ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভালো।

> অতিরিক্ত মাত্রায় হলুদ খেলে তা কেমোথেরাপির প্রভাব নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই যাদের কেমোথেরাপি চলছে, তাদের হলুদ না খাওয়াই ভালো।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
আঞ্চলিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর