• সোমবার   ০৬ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

আজকের খুলনা
১৪৫৫

করোনা চিকিৎসায় প্রস্তুত ৭৬৯৩ আইসোলেশন শয্যা

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২০  

করোনাভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৭ হাজার ৬৯৩ আইসোলেশন শয্যা আইসোলেশন শয্যা ও ১১২টি আইসিইউ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দেশের বিভাগীয় ও জেলা শহরে আইসিইউ শয্যা বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিন উপস্থাপনকালে এসব তথ্য জানান অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ৬০৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এখন পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৬৭ হাজার ১১৭। গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে ৩২ জনকে। এখন পর্যন্ত মোট প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৩৩১। সবমিলিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৩৮ এবং সর্বশেষ মোট সংখ্যা ৬৭ হাজার ৪৪৮ জন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

আর যারা কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন তাদের সংখ্যা ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬৫২ জন। সবমিলিয়ে ৫৭ হাজার ১৩২ জন কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছেন ১০ হাজার ১৯০ জন এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন রয়েছেন ১২৬ জন। সর্বমোট কোয়ারেন্টাইনে থাকার সংখ্যা দশ হাজার ৩১৬ জন।

Barishal

ঢাকা মহানগরীতে আইসোলেশনে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, ঢাকা মহানগরীতে আইসোলেশন বেডের সংখ্যা ১ হাজার ৫৫০টি। ঢাকা মহানগরীর বাইরে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলার হাসপাতালে ৬ হাজার ১৪৩টি আইসোলেশন বেড প্রস্তুত করা হয়েছে। সারাদেশে সর্বমোট আইসোলেশন বেডের সংখ্যা সাত হাজার ৬৯৩টি। এছাড়া আইসিইউ শয্যা সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১১২ এবং ডায়ালাইসিস বেডের সংখ্যা ৪০টি। আইসিইউ শয্যার সংখ্যা আরও বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। ইনশাল্লাহ দ্রুত সময়ের মধ্যে মোটামুটি একটা গ্রহণযোগ্য সংখ্যায় আইসিইউ শয্যার সংখ্যা দাঁড়াবে।

ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন হাসপাতালে ১ হাজার ৫৫০টি আইসোলেশন শয্যা রয়েছে। এর মধ্যে আইসিইউ বেড রয়েছে ৭৯টি। ঢাকা মহানগরীর বাইরে ঢাকা বিভাগে রয়েছে ৬৯৭ আইসোলেশন বেড, চট্টগ্রাম বিভাগে ৮৪৮টি, ময়মনসিংহ বিভাগে এক হাজার ৩০টি ও ২৬টি আইসিইউ শয্যা, বরিশালে ৫৪৫ আইসোলেশন শয্যা, সিলেটে ৩৪৬টি আইসোলেশন ও দুটি আইসিইউ শয্যা রয়েছে। রাজশাহীতে ১২শ আইসোলেশন শয্যা থাকলেও আইসিইউ শয্যা নেই। সেখানে আইসিইউ স্থাপনের কাজ চলছে। খুলনাতে রয়েছে ৬৯০টি আইসোলেশন শয্যা ও আইসিইউ বেড সংখ্যা ৫, রংপুরে আইসোলেশন শয্যা সংখ্যা ৭৮৭টি।

বিভাগীয় পর্যায়ে আইসোলেশন শয্যা সংখ্যা ৬ হাজার ১৪৩ এবং আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩৩টি। তবে বিভিন্ন বিভাগীয় পর্যায়ে ও জেলা শহরে আইসিইউ শয্যা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে বলে জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৪১ জন। এ নিয়ে দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬৪ জনে। আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৭ জনে।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর