আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি: তারেক-ফখরুলসহ ১২ জনের নামে মামলা ফতুল্লায় গণধর্ষণের শিকার নারী শ্রমিক, ছয় যুবক গ্রেপ্তার হেগে রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু চুয়াডাঙ্গায় আল্লাহর দলের সক্রিয় সদস্য আটক ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানি মামলার আবেদন গাজীপুরে জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ’র এক সক্রিয় সদস্য আটক বাংলাদেশ সীমায় মাছ শিকারে এসে ১৪ ভারতীয় জেলে আটক গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া ও নোয়াখালীর সুবর্নচরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৪, আহত ৪

মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের আমরণ অনশন সাভারে বিয়ের প্রলোভনে একযুগ ধরে ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার ৪০তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু ৪ জানুয়ারি নোয়াখালীতে পৃথক দুর্ঘটনায় ছাত্রদল নেতাসহ নিহত ৩ ৩৮ আরোহীসহ চিলির বিমান নিখোঁজ ১৬ ডিসেম্বর থেকে সব রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে “জয় বাংলা” জাতীয় স্লোগান হিসেবে ব্যবহার করতে হবে : হাইকোর্ট নাটোরের সিংড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু মাদারীপুরে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ-গাড়ি ভাঙচুর, আটক ২২
২৫

এবার নতুন খোলসে মাঠে নেমেছে শিবির

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রকাশিত ১:৪৫ পিএম

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৯  

চাপের মুখে থেকেও এবার নতুন ‘খোলসে’ মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির! যেখানে যে অনুভূতি কাজে লাগানো যায় সেটাতে ভর করে গোপন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে তারা। প্রাথমিকভাবে সদস্য সংগ্রহ অভিযানেও নামা হয়েছে। রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২০ শিবির নেতাকর্মী আটকের পর পুলিশ এমন তথ্যই পেয়েছে। গতকালের ওই অভিযানে পুলিশ জিহাদি বইও উদ্ধার করে। এ সময় বাংলাদেশ কওমি ছাত্র পরিষদ নামের একটি সংগঠনের সদস্য ফরমও উদ্ধার করা হয়। মূলত কওমি ছাত্র পরিষদের সঙ্গে ইসলামী ছাত্রশিবিরের আদর্শিক মিল নেই। তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কওমিপন্থীদের একটি বড় অংশ রয়েছে। আর এ অবস্থাকে কাজে লাগিয়েই ইসলামী ছাত্রশিবির এখানে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য নামে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ জানায়, রবিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে পৌর এলাকার ভাদুঘরের আলহেরা হাফিজিয়া মাদরাসায় অভিযান চালিয়ে ২০ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়। বিজয় দিবসে নাশকতার পরিকল্পনা করতে সেখানে তাঁরা বৈঠক করছিলেন বলে পুলিশ জানায়। তাঁদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ জিহাদি বই ও সিল উদ্ধার করা হয়।

তাঁরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিভিন্ন কলেজ ও মাদরাসার ছাত্র। তাঁদের সদর থানায় রাখা হয়েছে। রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশের বিশেষ শাখার ওসি ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, বিকেল সাড়ে ৩টা নাগাদ উদ্ধার করা বইয়ের তালিকা করার পাশাপাশি আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে ভাদুঘর এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী আকতার হোসেন জানান, আলহেরা হাফিজিয়া মাদরাসা ও মসজিদে সাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল। এই মাদরাসায় কী হয় তা জানত না গ্রামবাসী। প্রায়ই মাদরাসাটিতে অপরিচিত ছেলেদের আনাগোনা দেখা যেত। ইসলামী ঐক্যজোট ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি এনামুল হাসান  বলেন, ‘জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে আমাদের ধর্মীয় বিশ্বাসে কোনো ধরনের মিল নেই। রাজনৈতিকভাবেও না। যে মাদরাসা থেকে তাদের আটক করা হয়েছে সেটির সঙ্গেও আমাদের কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই। আমার মনে হচ্ছে, কওমি মাদরাসার অবস্থানকে পুঁজি করে উদ্দেশ্য হাসিল কিংবা রাজনৈতিক ফায়দা লোটার জন্য শিবির লেবাস পাল্টে কার্যক্রম চালাচ্ছে।’ অভিযানে থাকা পুলিশ পরিদর্শক সোহাগ রানা জানান, এই মাদরাসা থেকে পুরো জেলায় জামায়াতের কার্যক্রম পরিচালিত হতো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ২০ জনকে বৈঠক করা অবস্থায় পাওয়া যায়। তাঁদের আটক হয়।   

সদর থানার ওসি সেলিম উদ্দিন জানান, অন্য সংগঠনের নামে কার্যক্রম চালানোর বিষয়টি তাদের একটি নতুন কৌশল। আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে এ বিষয়টিসহ আরো তথ্য জানার চেষ্টা চলছে। বিজয় দিবসে কোথায় কী ধরনের নাশকতার চেষ্টা করা হচ্ছিল, সে বিষয়েও জানার চেষ্টা চলছে। তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর