• সোমবার   ০৬ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

আজকের খুলনা
৩১৪৭

ইশরাকের প্রচারণায় খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এলেন জামায়াতের নারী কর্মীরা

আজকের খুলনা

প্রকাশিত: ২১ জানুয়ারি ২০২০  

রাজনীতির মাঠে ক্লীন ইমেজ ফিরিয়ে আনার জন্য বিএনপির হাইকমান্ড থেকে বেশ কিছুদিন ধরেই ‘‘জামায়াত-শিবিরের সাথে আমাদের কোনো সম্পর্ক নেই’’-এ জাতীয় প্রচারণা চালাচ্ছিল। সিটি নির্বাচনেও একই ধরণের বার্তা দেয়া হয়েছে দলটির পক্ষ থেকে। অন্যদিকে, জামায়াতও বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিল সিটি নির্বাচনে তারা কারো সাথে জোট বাধঁবে না এমনকি জোটভুক্ত অন্য কোনো দলের (বিএনপি) প্রার্থীকে সমর্থনও জানাবে না।

বিএনপির ঘোষণা ও জামায়াতের বিবৃতি পর্যালোচনা করে ওই সময় রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছিলেন, ‘‘জামায়াতের বিরুদ্ধে যত অপকর্মের অভিযোগ থাকুক না কেনো, বিএনপি ও জামায়াত কেউ কাউকে ছাড়বে না। তাদের গোপন আতাঁত রয়েছে। বিএনপিকে টিকিয়ে রেখেছে জামায়াত। খুব সম্ভবত নির্বাচনের মাঠে তারা একযোগে নাশকতা চালাবে।’’

বিশ্লেষকদের সেই আশংকাই শেষ পর্যন্ত সঠিক হলো। বিএনপির হয়ে প্রকাশ্যে মাঠে নামলো জামায়াত। প্রাথমিকভাবে তারা তাদের কয়েক হাজার প্রশিক্ষিত নারী কর্মীকে রাজধানীতে নামিয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় ঢাকা দক্ষিণে ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের হয়ে প্রচারণায় নামে জামায়াতের কয়েক শ’ মহিলা কর্মী। তারা ইশরাকের হয়ে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন। ইশরাকের সভা সমাবেশ ও পুরো প্রচারণা জুড়েই তারা সাথে ছিলেন। বিকেলে নাগাদ সোস্যাল মিডিয়াতে এ সংক্রান্ত সংবাদ ও ছবি ভাইরাল হয়ে পড়ে। ছবিতে দেখা যায, নারী জামায়াত কর্মীরা ফুল দিয়ে ইশরাককে বরণ করে নিচ্ছেন।

এবিষয়ে ডেমরা এলাকার বাসিন্দা ও সিটি নির্বাচনের ভোটার আফজালুর রহমান বলেন, ‘‘এর আগে বিএনপি প্রার্থী ইশরাক হোসেনের আমরা জামায়াত-শিবির কর্মীদের সেভাবে প্রকাশ্যে দেখিনি। কিন্তু মঙ্গলবার দেখলাম। জামায়াতের বিপুল সংখ্যক মহিলা কর্মীদের সাথে কিছু পুরুষ কর্মীও ছিলেন। বিএনপির হয়ে মাঠে নামাকে সাধারণ ভোটাররা ভালো চোখে দেখছেন না।’’

ডেমরা থানা বিএনপির নেতা আসাবুর রহমান বলেন, ‘‘যুদ্ধাপরাধসহ নানা কারণে জামায়াত বিতর্কিত। আজ জামায়াতকে প্রচারণায় সম্পৃক্ত করে আমাদের মেয়র প্রার্থী (ইশরাক হোসেন) মারাত্মক ভুল করলেন। এতে ভোট কমে যাবে। তাছাড়া, বিএনপির হারানো ইমেজ উদ্ধারে যে পদক্ষেপগুলো নেয়া হয়েছিল, তা ভেস্তে যাবে।’’

একই কথা বলেছেন ৬৬ নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা আ. আজিজ সরকার। বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রবীন এই নেতা বলেন, ‘‘একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়ে ইশরাক জামায়াতের হাত ধরলো, ভাবতেই প্রচন্ড কষ্ট ও ঘৃণা হচ্ছে। আমি বিএনপি করি এটা ঠিক কিন্তু ইশরাককে আমি ভোট দেব না।’’

 

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর