আজকের খুলনা
ব্রেকিং:
কুমিল্লায় জাতীয় পার্টির সভায় দফায়-দফায় সংঘর্ষ, সাবেক এমপিসহ আহত ১০ আমিরাতের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী পর্যাপ্ত টেস্ট না খেলা ব্যর্থতার কারণ : মুমিনুল পেঁয়াজ ছাড়াও রান্না সুস্বাদু হয়, গণভবনে পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী ভারতের বিপক্ষে টেষ্টে বাংলাদেশ আশার চেয়েও খারাপ খেলেছে : পাপন খুলনার বড়বাজারে অতিরিক্ত দামে পেঁয়াজ বিক্রি করায় আড়তদারকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা ইমার্জিং এশিয়া কাপ ক্রিকেটে ভারতকে হারাল বাংলাদেশ সুন্দরবনে অপহৃত দশ শ্রমিক উদ্ধার, আটক এক

রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আজকের খুলনা
সর্বশেষ:
৪ দিনের সফরে দুবাইয়ের পথে প্রধানমন্ত্রী উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে : রেলমন্ত্রী খুলনায় তৃতীয় দিনে ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা কর আদায় মিসর থেকে পিয়াজের প্রথম চালান পৌঁছাবে মঙ্গলবার সুন্দরবনে শিশুসহ ১০ শ্রমিক উদ্ধার, আটক ১ নোবিপ্রবিতে গাঁজা সেবনকালে ৩ ছাত্রী আটক
১৭

আদিম যুগের মতো চার পায়ে চলেন তারা

ইত্যাদি ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০১৯  

একটি পরিবারের সদস্য সংখ্যা ২১ জন। তাদের মধ্যে ৫ ভাই-বোন সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারেন না। আদিম মানুষের মতোই সামনের দিকে ঝুঁকে মুখটা উপরের দিকে তুলে চার হাত-পায়ে ভর দিয়ে চলাফেরা করেন তারা। তাদের মেরুদণ্ডে, হাঁটুতে, পায়ে বা কোমরে কোন গুরুতর সমস্যা নেই। তবুও সোজা হয়ে দাঁড়াতেই পারেন না!

জানা যায়, আগে এই ৫ ভাই-বোনের কথা কেউ জানতো না। ২০০৫ সালে বিবিসির একটি তথ্যচিত্রের মাধ্যমে জানা যায় তাদের কথা। তখন থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত মস্তিষ্কের স্ক্যান, রক্তের নমুনা—কিছুই বাদ যায়নি। তবুও তেমন কোন সমস্যা ধরতে পারেননি চিকিত্সকরা।

সূত্র জানায়, দক্ষিণ তুরস্কের হাতায় প্রদেশের একটি গ্রামে বসবাস করেন তারা। প্রথম এ পরিবারের খোঁজ পান তুরস্কের বিজ্ঞানী উনের ট্যান। ট্যান এই ৫ ভাই-বোনকে দীর্ঘদিন পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি মনে করেন, এর পেছনে রয়েছে বিপরীত বিবর্তন। ওই বিজ্ঞানীর নামানুসারে এ পরিস্থিতির নামকরণ করা হয় ‘উনের ট্যান সিন্ড্রোম’।

তবে ২০১৪ সালে ব্রিটিশ বিজ্ঞানীদের একটি গবেষণাপত্রে দাবি করা হয়, বিপরীত বিবর্তনের ফলে নয়, ‘সেরিবেলার হাইপোপ্লাসিয়া’ নামের বিরল জিনগত সমস্যার কারণে সোজা হয়ে হাঁটতে পারেন না তারা। বিজ্ঞানীরা জানান, এ রোগে শরীরের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যায়। ফলে সোজা হয়ে দাঁড়ানো একেবারে অসম্ভব হয়ে পড়ে।

কিন্তু বিজ্ঞানীরা যা-ই বলুন না কেন, স্থানীয় মানুষ এখনো তাদের দেখলে তাড়া করে, পাথর ছোড়ে, হাসি-ঠাট্টা ও কটূক্তির মাধ্যমে উত্যক্ত করে। তাই তারা বাড়ির বাইরে তেমন একটা বের হন না। দিনের বেশিরভাগ সময় লোকচক্ষুর আড়ালেই কাটে তাদের সময়।

আজকের খুলনা
আজকের খুলনা
এই বিভাগের আরো খবর